বাংলাদেশ রেলওয়ে টিকিট, bangladesh railway e-ticketing registration, Bangladesh Railway Railway e Ticket, ট্রেনের টিকিট ক্রয়, Railway ticket Rail sheba app, মোবাইল ট্রেন টিকেট বুকিং,

ই-টিকেটিং সিস্টেমে টিকেট ক্রয়ের নিয়ম ২০২২

অনলাইনে যেভাবে রেলের টিকিট কিনবেন – ই-টিকিটিং প্রক্রিয়া আরও সহজ হচ্ছে – ই-টিকেটিং সিস্টেমে টিকেট ক্রয়ের নিয়ম ২০২২

কবে থেকে অনলাইনে টিকিট ক্রয় করা যাবে? – আগামীকাল ২৫ তারিখ সন্ধ্যা ০৬.০০ টা থেকে সহজ ডটকম এর অধীনে কাউন্টারে কম্পিউটারাইজড টিকেট এবং অনলাইন ই-টিকেটিং চালু হচ্ছে। অনলাইন টিকেট পাওয়া যাবে- www.eticket.railway.gov.bd ওয়েবসাইটে।

বাংলাদেশ রেলওয়ের ইন্টিগ্রেটেড টিকেটিং সিস্টেম (BRITS) পরিচালনার জন্য সহজ-সিনেসিস-ডিনসেন জেডি’র সাথে ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১২ তারিখে স্বাক্ষরিত চুক্তি অনুযায়ী ৭৭টি স্টেশনে কম্পিউটার টিকেটিং সিস্টেম সহজ-সিনেসিস-ডিনসেন জেডি’র মাধ্যমে পরিচালনার জন্য ২১-২৫ মার্চ ২০১২ তারিখ পর্যন্ত ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে টিকিট ইস্যু এবং ২৬ মার্চ ২০২২ তারিখ হতে(যাত্রার তারিখ বিবেচনায়) সহজ-সিনেসিস-ভিনসেন জেডি’র কর্তৃক কম্পিউটার ও অনলাইনের মাধ্যমে টিকিট ইস্যু করার প্রশাসনিক সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।

সেই প্রেক্ষিতে ২৫ মার্চ বিকাল ১৮:০০ ঘটিকা হতে পুনরায় কম্পিউটারের মাধ্যমে বর্ণিত ৭৭টি স্টেশনের আন্তঃনগর ট্রেনের টিকিট ইস্যু করা হবে। পাঁচ দিনের অগ্রীম টিকিট ইস্যুর বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে নিমােক্ত পদ্ধতি অনুসরণ করে টিকিট ইস্যু করা হবে। ২৬ মার্চ ২০১২ তারিখে যে সকল ট্রেনের যাত্রা শুরু হবে শুধুমাত্র সে সকল ট্রেনের টিকিট কম্পিউটারের মাধ্যমে ইস্যু করা হবে (২৫ মার্চ ২০১৭ তারিখ বিকাল ১৮:০০ ঘটিকা হতে)। ২৫ মার্চ ২০২২ তারিখ যে সকল আন্তঃনগর ট্রেন যাত্রা আরম্ভ করে ২৬ মার্চ ২০১২ তারিখে যাত্রা শেষ করবে। কেবলমাত্র সেসকল ট্রেনের পথিমধ্যে সকল বিরতী সম্পন্ন স্টেশনের টিকিট ম্যানুয়েল পদ্ধতিতে অর্থাৎ পেপার টিকিট/বিপিটি’র মাধ্যমে ইস্যু করতে হবে; কম্পিউটারাইজড পদ্ধতিতে ২৫ মার্চ ২০১২ তারিখে ২৬ মার্চ হতে ২৯ মার্চ ২০১৭ তারিখ পর্যন্ত চলাচলকারী সকল আন্তঃনগর ট্রেনের টিকিট ইস্যু করা হবে এবং ২৬ মার্চ ২০২২ তারিখ হতে রেলওয়ের প্রচলিত নিয়মানুযায়ী টিকিট ইস্যু করা হবে। তবে ২৫ মার্চ ২০২২ তারিখে অনলাইনের মাধ্যমে টিকিট ইস্যু সাময়িকভাবে বন্ধ থাকবে।

E Ticketing system 2022 / How to purchase railway ticket from online process

আপনি অনলাইনেই রেলে ভ্রমণের টিকিট কেটে ফেলতে পারেন।

ই-টিকেটিং এর মাধ্যমে ক্রয়কৃত টিকিট ২০২২

Caption: Online purchase system for railway e ticketing

ই-টিকেটিং এর জন্য Registration প্রক্রিয়া ২০২২

১। প্রথমে www.railway.gov.bd ওয়েব সাইটে প্রবেশ করতে হবে। 

২। ওয়েবসাইটে ঢুকে “ডান পার্শ্বের Internal E-services/আভ্যন্তরীণ ই-সেবা হতে Railway E-Ticketing service/রেলওয়ে ই-টিকিট” এর লিংক এ ক্লিক করতে হবে। 

৩। Bangladesh Railway এবং CNS Ltd. লেখা ও লোগো সম্বলিত একটি নতুন ওয়েব সাইট খুলে যাবে। ওয়েব সাইটটির নীচের দিকে “Sign up” বাটনে ক্লিক করতে হবে। 

৪। Create an Account” নামের নতুন একটি Page আসবে। 

৫। এখানে “Personal Information” ও Extra Information” এর সংশ্লিষ্ট ঘরগুলো প্রয়োজনীয় তথ্যাদি দিয়ে পূরণ করতঃ Security code ঘরের পাশে প্রদর্শিত “Security Code” দিয়ে পূরণ করে Register বাটনে ক্লিক করতে হবে। 

৬। সকল তথ্যাদি সঠিক থাকলে “Registration Successful” নামে নতুন একটি Page আসবে। 

৭। ই-টিকেটিং সিস্টেম থেকে তাৎক্ষনিকভাবে আপনার প্রদত্ত ই-মেইল ঠিকানা Bangladesh Railway এর থেকে একটি ই-মেইল পাঠানো হবে। 

৮। আপনার ই-মেইল এর মেসেজ বক্সে Bangladesh Railway প্রদত্ত ই-মেইলটি খুলতে হবে। মেসেজের ভিতর রক্ষিত “Click” লিংকটিতে ক্লিক করতে হবে। এ প্রক্রিয়ার পর যাত্রীর Registration প্রক্রিয়াটি সম্পূর্ণ হবে। (রেজিস্ট্রেশন একবার বা প্রথমবারই করতে হবে)।

ই-টিকেটিং বা টিকিট ক্রয় প্রক্রিয়া ২০২২

১। প্রথমে www.railway.gov.bd ওয়েব সাইটে প্রবেশ করতে হবে।

২। ওয়েবসাইটে ঢুকে “ডান পার্শ্বের central E-service হতে Railway E-Ticketing service” এর লিংক এ ক্লিক করতে হবে।

৩। Bangladesh Railway এবং CNS Ltd. লেখা ও লোগো সম্বলিত একটি নতুন ওয়েব সাইট খুলে যাবে।

৪। “Log in” এর প্যানেল ই-মেইল ঠিকানা, পাসওয়ার্ড এবং সিকিউরিটি কোড পূরণ করতঃ “Log in” বাটনে ক্লিক করতে হবে।

৫। এরপর যে Pageটি আসবে তাতে “Purchase ticket” বাটনে ক্লিক করতে হবে।

৬। এখানে যে Pageটি আসবে সে Page এ আপনার চাহিত ভ্রমণ তারিখ, প্রারম্ভিক স্টেশন, গন্তব্য স্টেশন, ট্রেনের নাম, শ্রেনী, টিকেট সংখ্যা যেভাবে রয়েছে তা পূরণ করতে হবে। এর পরের পেইজে “Registration Seat Available” দ্বারা চাহিত টিকেট এবং এর মূল্যমান জানিয়ে দেয়া হবে। টিকেট থাকলে “Purchase ticket” বাটন ক্লিক করতে হবে।

৭। ক্রেডিট কার্ড, ক্যাশ কার্ড কিংবা ব্রাক ব্যাংকের একাউন্ট মারফত যাত্রির জমাকজৃত টাকা থেকে টিকেট মূল্য কেটে নেয়া হবে এবং যাত্রীর ই-মেইলে ই-টিকেটটি পাটিয়ে টিকেট নিশ্চিত করা হয়ে থাকে।

৮। ই-মেইল মেসেজ বক্স থেকে প্রেরিত টিকেটটির প্রিন্ট নিয়ে ফটো আইডিসহ ই-টিকেট প্রদত্ত “Ticket Print Information” প্রদান করে সংশ্লিষ্ট সোর্স ষ্টেশন থেকে যাত্রার পূর্বে ছাপানো টিকেট সংগ্রহ করতে হবে।

টিকিট কি ম্যানুয়াল বা কাউন্টারেও বিক্রি হবে?

২৬ মার্চ ২০২২ তারিখ (টিকিট ইস্যুর সময় বিবেচনায়) হতে কাউন্টারের পাশাপাশি অনলাইনে (eticket.railway.gov.bd) পাের্টালের মাধ্যমে নির্ধারিত কোটা অনুযায়ী পুর্বের ন্যায় সকাল ০৮:০০ ঘটিকা হতে টিকিট ইস্যু করা হবে।

(Visited 2,257 times, 1 visits today)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *