নতুন ভোটারদের ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ২০২২

নতুন ভোটারদের ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ২০২২

নতুন ভোটার হওয়া আবেদন করুন অনলাইনেই – অনলাইনে ভোটার হওয়ার আবেদন করতে কোন প্রকার কাগজপত্র দাখিল করতে হয় না – নতুন ভোটার নিবন্ধন ২০২২

জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন আইন, ২০১০– ভোটার তালিকা আইন, ২০০৯ (২০০৯ সনের ৬ নং আইন) অনুসারে ভোটার হিসাবে তালিকাভুক্ত প্রত্যেক নাগরিক, নির্ধারিত পদ্ধতি ও শর্ত সাপেক্ষে, জাতীয় পরিচয়পত্র পাইবার অধিকারী হইবেন।(২) উপ-ধারা (১) এ যাহা কিছুই থাকুক না কেন, কমিশন অন্যান্য নাগরিককে, নির্ধারিত পদ্ধতি ও শর্ত সাপেক্ষে, জাতীয় পরিচয়পত্র প্রদান করিতে পারিবে।

জাতীয় পরিচয়পত্র বায়োমেট্রিকস ফিচার (Biometrics feature)” অর্থ কোন নাগরিকের নিম্নবর্ণিত এক বা একাধিক বৈশিষ্ট্য অর্থাৎ আঙ্গুলের ছাপ (Finger Print), হাতের ছাপ (Hand Geometry), তালুর ছাপ (Palm Print), চক্ষুর কনীনিকা (Iris), মুখাবয়ব (Facial Recognition), ডি এন এ (Deoxyribonucleic acid), স্বাক্ষর (Signature), এবং কণ্ঠস্বর (Voice) এসব এর যে কোন দুই বা ততোধিক মাধ্যমকে ইলেক্ট্রনিক পদ্ধতিতে সংরক্ষণের ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

নতুন ভোটার হতে কোন প্রকার ফি গুণতে হয় না। তাই আপনি নির্বাচন কমিশনের দালাল হতে সাবধান থাকুন। অনলাইন বা ম্যানুয়াল আবেদন করলেই ভোটার হতে পারবেন। নতুন ভোটার হতে ১৫ হতে ৯০ দিন পর্যন্ত সময় লেগে যেতে পারে। তবে অনলাইন যদি আপনি তথ্যগুলো সঠিক ইনপুট দিয়ে থাকেন এবং সংযুক্ত কাগজপত্রগুলো সঠিকভাবে যুক্ত করে থাকেন অতিদ্রুত নতুন ভোটার নিবন্ধিত হয়।

জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন  / NID Correction Fee 2022

বর্তমানে বিকাশ, রকেট, নগদ মোবাইল ব্যাংকিং পদ্ধতি ব্যবহার করেই ফি জমা দেওয়া যায়। আপনি চাইলে সরকারি চালান ফরমেও এটি জমা দিতে হবে। তবে মনে রাখবেন মূল টাকা এবং ভ্যাট আলাদা জমা দিতে হবে (চালানে জমা দেয়ার ক্ষেত্রে)

New Voter Registration Form 2022

Caption: NID Card Correction Fees 2022

আপনি কি নতুন ভোটার হচ্ছেন? নতুন ভোটার হতে যেসব ডকুমেন্ট লাগে?

  1. ফরম-২ এ উল্লেখিত শিক্ষাগত যােগ্যতার সনদের কপি।
  2. জন্ম ০১-০১-১৯৯৮ সালের পূর্বে হলে ম্যাচিং রিপাের্ট।
  3. অনলাইন জন্ম নিবন্ধন সনদের (কপিসহ)।
  4. সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড কাউন্সিলর/কমিশনার কর্তৃক প্রদত্ত নাগরিকত্ব সনদ (ব্যক্তির ছবিসংযুক্ত সহ)।
  5. জন্ম ০১-০১-২০০০ সালের পূর্বে ভােটার না হওয়ার কারন উল্লেখ করে * ১০০ টাকার স্ট্যাম্পে নিজ কর্তৃক হলফনামার মুল কপি।(ব্যক্তির ছবি সংযুক্ত সহ)
  6. নিজ বাড়ির বিদ্যুৎ বিল, হােল্ডিং ট্যাক্স/খাজনা রসিদ কপি।
  7. ভাড়াটিয়া হলে বাড়িওয়ালার NID কপি, বিদ্যুৎ বিল, বাড়িওয়ালা এবং ভাড়াটিয়া কর্তৃক ২০০ টাকার স্ট্যাম্পে বাড়ি ভাড়ার চুক্তিপত্র কপি।
  8. পিতা, মাতা,স্বামী/ স্ত্রী NID কপি এবং পিতা-মাতা মৃত হলে মৃত্যু সনদ, এবং স্বামী/স্ত্রী ভােটার না হলে স্বামী/স্ত্রীর কাবিননামা।
  9. প্রবাসী হলে এ্যারাইভাল সিল ও তারিখসহ পাসপাের্টের কপি।
  10. রক্তের গ্রুপের রিপাের্ট কপি।
  11. বয়স ৪০ এর উর্ধ্বে হলে জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কর্তৃক হলফনামা কপি।
  12. নিবন্ধন ফরমের ৩৪ ও ৩৫ নম্বর শনাক্তকারী হিসেবে বাবা মা। স্বামী স্ত্রী বাড়িওয়ালার নম্বর ও স্বাক্ষর গ্রহণ করতে হবে।
  13. নিবন্ধন ফরমের ৪০,৪১,৪২ নং যাচাইকারী হিসেবে ওয়ার্ড।

সংযুক্ত কাগজপত্র কি সত্যায়িত হতে হবে?

জি– ফরম-২ অর্থাৎ নিবন্ধন ফরম সত্যায়িত করতে হবে না। কিন্তু অন্যান্য সংযুক্ত সকল কাগজপত্র সত্যায়িত করতে হবে। কমিশনার কর্তৃক নাম, নম্বর এবং সিল-স্বাক্ষর গ্রহণ করতে হবে। যথাযথ কাগজপত্র সংযুক্ত না করে আবেদন করলে আবেদন বাতিল হতে পারে। এক্ষেত্রে আবেদন বাতিল হলে পুনরায় আবেদন করতে হবে।

ভোটার হওয়ার যোগ্য নাগরিকদের তথ্য সংগ্রহের জন্য একটি নতুন ফরম তৈরী করা হয়েছে। প্রতিটি ফরমে নম্বরযুক্ত এবং প্রশাসনের ক্ষুদ্রতম ইউনিটের জিওকোড এর সাথে সামঞ্জস্যপূর্ন। নিবন্ধন ফর্ম: ডাউনলোড

(Visited 8,472 times, 1 visits today)

One comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *