Student দের জন্য অনলাইন আয়

Student দের জন্য অনলাইন আয়ের উপায় ২০২২

বাংলাদেশের সকল স্টুডেন্ট ই পড়াশুনার পাশাপাশি কিছু আয় করতে চায়। সেটি প্রাইভেট পড়িয়ে হোক বা অনলাইনে কোন উপায়ে হোক।

প্রাইভেট পড়িয়ে বা টিউশনী করিয়ে যে অর্থ পাওয়া যায় তা দিয়ে হয়তো চলা যায় কিন্তু পরিবারকে কোন সহযোগিতা করা সম্ভব হয় না। তাছাড়া আপনি সারা বছর প্রাইভেট পড়াবেন কিন্তু আপনার মাসিক সম্মানীর কোন অগ্রগতি হবে না বা হলে সেটি যত সমান্য।

অনলাইন হতে কি পড়াশুনার পাশাপাশি আয় করা যায়?

হ্যাঁ আপনি প্রাইভেট পড়ি যাবেন, পরিশ্রম করেই যাবেন তাতে আয়ের কোন বৃদ্ধি বা ইনক্রিমেন্ট হবে না। অন্য দিকে আপনার নিজের পড়াশুনার পাশাপাশি আপনি অনলাইনে যদি কাজ করেন তবে আপনার আয় প্রতিমাসেই কিছু না কিছু বাড়তে থাকবে। তাই অনলাইনে কাজ করার অভ্যাস গড়ুন তাকে আপনার জন্য এটি সম্পদ হিসাবে ধরা দিবে একদিন। পড়াশুনার পাশাপাশি আপনি ইউটিউবে কাজ করে আয় করতে পারেন। ধরুন আপনি ম্যাথ ভাল জানেন, আপনি চাইলেই আপনার স্মার্ট ফোনটি ব্যবহার করে খুব সহজেই ভাল মানের ভিডিও কন্টেন্ট তৈরি করে ইউটিউব থেকে আয় করতে পারেন। ইউটিউব থেকে কিভাবে টাকা কামানো যায়।  আপনি আপনার ম্যাথ স্কিল ব্যবহার করে ভাল মানে কিছু ভিডিও তৈরি করে নিতে পারেন এবং সেগুলো ইউটিউবে একটি চ্যানেল খুলে তাতে পাবলিশ করে জনপ্রিয় করে তুলে খুব সহজেই গুগল এ্যাডসেন্স থেকে আয় করতে পারেন।

কিভাবে ইউটিউব চ্যানেল খুলতে হয়?

ইউটিউব চ্যানেল কিভাবে খুলতে হয় এটি জানা কোন কঠিন বিষয় নয়। আপনি Youtube এ “কিভাবে ইউটিউব চ্যানেল খুলতে হয়” লিখে সার্চ করুন বা আমার দেওয়া লিংকে ঢুকে দেখে নিন এবং শিখে নিন ইউটিউবে চ্যানেল খোলার পদ্ধতি। আপনি শুধু ইউটিউবে চ্যানেল খুলেই বসে থাকবেন না, পর্যান্ত ভিডিও আপলোড করুন এবং সোস্যাল মিডিয়াতেও আপনার ইউটিউব চ্যানেলের নামে ফেসবুক পেইজ বা অন্যান্য মার্কেটিং সাইটে পেইজ খুলে সঠিক উপায়ে মার্কেটিং করে নিন। প্রয়োজনে আপনি পকেটের কিছু টাকা ব্যয় করে একটি ওয়েব সাইট বানিয়ে নিয়ে তাতে ভিডিও গুলো লিংক করে দিন। কিভাবে একটি ওয়েব সাইট খুলতে হয় জেনে নিন। আপনি আমার দেওয়া লিংক ব্যবহার করতে পারেন অথবা ইউটিউবে সার্চ করে এ রকম অনেক ভিডিও দেখে নিতে পারেন।

ওয়েব সাইট কিভাবে খুলতে হয়?

ওয়েব সাইট খোলা এখন ছেলের হাতের মোয়ার মতনই। আপনি ফ্রি অথবা খুব অল্প অর্থ ব্যয় করেই ওয়েবসাইট খুলে নিতে পারেন। ব্লগার ব্যবহার করে একটি ওয়েব সাইট খুলে ৬০০-৯০০ টাকা ব্যয় করে একটি কাস্টম ডোমেইন কিনে এ্যাড করে নিন ব্যাস আপনার ওয়েব সাইট রেডি টু পাবলিশ কন্টেন্ট। আসুন জেনে নিই কিভাবে ব্লগার দিয়ে একটি ওয়েব সাইট খুলতে হয়। এছাড়াও আপনি ওয়েব কন্টেন্ট পড়েও একটি ব্লগার ব্লগ খুলে নিতে পারেন। এবার আসুন ব্লগারে একটি কাস্টম ডোমেইন এ্যাড করবেন যেভাবে তা দেখে নিই। এছাড়া বিভিন্ন হোস্টিং বা ডোমেইন বিক্রেতাও আপনাকে ডোমেইন এ্যাড বা ডোমেইন -হোস্টিং ক্রয়ে সহযোগিতা করে থাকে। After Sale Service এ তারা আপনাকে যে কোন সমস্যায় সহযোগিতা করবে। তাই ওয়েব সাইট খুলতে বা পরিচালনা করতে আপনাকে কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ার হতে হবে এমনটি নয়। আপনি চাইলেই এধরনের কাজ নিজেই সেড়ে নিতে পারেন ইউটিউব বা গুগলের সহযোগিতা নিয়ে তাই দেরি নয় আজই একটি ইউটিউব চ্যানেল বা ওয়েবসাইট খুলুন এবং আয় করা শুরু করুন।

এগুলোতো অনেক কঠিন ব্যাপার, এর চেয়ে কোন সহজ উপায় নাই?

হ্যাঁ আপনি যদি ট্রাই করে থাকেন এবং কিছু সময় নস্ট না করেও কোন আয়ের পথে এগুতে না পারেন তবে আপনার জন্য রয়েছে একটি সহজ উপায়। তা নিয়েই এখন আমি আলোচনা করুন। এমন অনেক ফেসবুক গ্রুপ আছে যেগুলো সাধারণ টাইপিং বা কন্টেন্ট তৈরি বা প্রজেক্ট রেডি করতে লোক চায় বা হায়ার করে থাকে। আসুন এমন কিছু গ্রুপে জয়েন করে হেল্পিং হ্যান্ড হিসাবে কাজ করে আয় করি। Upwork Bangladesh Facebook Group আপনার জন্য কাজ পাওয়ার আদর্শ গ্রুপ হতে পারে। এই গ্রুপ টিতে প্রায়ই কাজের জন্য লোক চেয়ে পোস্ট দেয়া হয়। আপনি কোন দক্ষ লোকের টিমে যোগ দিয়ে আপনিও ধীরে ধীরে দক্ষ হয়ে উঠতে পারেন এবং বেশ কিছু অর্থ ছোট ছোট কাজ করে পেমেন্ট নিতে পারেন।

অ্যাপ থেকে কিছু স্টুডেন্ট রা আয় করতে পারে?

হ্যাঁ, বিকাশ অ্যাপ সহ বাংলাদেশী অনেক অ্যাপ রয়েছে যেগুলোতে টুকিটাকি রেফারেল দিয়ে আপনি রেফারেল ইনকাম করতে পারেন। এছাড়া বিদেশী কিছু অ্যাপ রয়েছে যেগুলো সাময়িক ইনকাম দেয়, যেমন এ্যাড দেখার জন্য, ভিডিও ভিউয়ের জন্য অথবা কোন অ্যাপ টেস্ট বা জরিপের জন্য। আপনি ছোট ছোট এসব কাজ করে আয় করতে পারেন, এতে যদি সময় বেশি লাগে তবুও কিছু টাকা ইনস্ট্যান্ট আয় করা যায়। তবে আমি আপনাকে দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা নিয়ে আগাতে বলবো, তাই প্রথম ৬ মাস থেকে ২ বছর পর্যন্ত আর্নিয়ের দিকে নজর না দিয়ে লার্নিয়ের দিকে নজর দিন।

অনলাইনে বিভিন্ন কোর্স রয়েছে আপনি সেখান থেকে অর্থ ব্যয় করে কোর্স কিনে শিখতে পারেন অথবা ইউটিউব বা গুগল ঘাটাঘাটি করে শিখে নিতে পারেন। কোন একটি নির্দিষ্ট বিষয়ে দক্ষতা অর্জন করুন আপনার জন্য কাজের অভাব হবে না। আর যদি ইতোমধ্যে আপনি কোন স্পেশাল গুন থাকে তবে আজই ইউটিউবে তা ভিডিও করে আপলোড করুন প্যাসিব ইনকামের অভাব হবে না।

(Visited 268 times, 1 visits today)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *