জিপিএফ ব্যালেন্স চেক করবেন যেভাবে

জিপিএফ হিসাব বের করার নিয়ম। সরকারি কর্মচারীদের লাভজনক বিনিয়োগ

জিপিএফ বা সাধারণ ভবিষ্য তহবিল সরকারি কর্মচারীদের একটি লাভজনক বিনিয়োগ। মূল বেতনের ৫% চাঁদা জিপিএফ এ কর্তন বাধ্যতামূলক। তবে চাকরি দু’বছর পূর্ন হওয়ার পূর্বে জিপিএফ কর্তন ইচ্ছাধীন। তবে দু’বছর পূর্ণ হলে কর্মচারীর ইচ্ছা থাকুক বা না থাকুক কর্তৃপক্ষ সর্বনিম্ন ৫% জিপিএফ এ কর্তন করবে। তবে চাঁদা দাতা যদি ইচ্ছা পোষন করে মূল বেতনের সর্বোচ্চ ২৫% পর্যন্ত কর্তন বা চাঁদা প্রদান করতে পারবেন।

চাকরি শেষে কত টাকা পাওয়া যেতে পারে?

বর্তমান পে স্কেল এবং ভবিষ্যত সম্ভাব্য কর্তন বিবেচনায় আনলে দেখা যায় যে যদি কোন কর্মচারী বা কর্মকর্তা মূল বেতন হতে জিপিএফ এ নিয়মিত মুল বেতন হতে যদি কেহ ২৫% হারে চাঁদা প্রদান করেন অথবা ৩-৭ হাজার টাকা চাকরিজীবনে কর্তন করে তবে তিনি ২৫-২৭ বছর পরে জিপিএফ থেকে ১ (এক) কোটি টাকা পর্যন্ত মুনাফা সহ আসল পাবেন। মোট কথা জিপিএফ থেকে আপনি কোটি টাকা পেতে পারেন। আপনি ৩-৭ হাজার টাকা চাকরি জীবন যদি ব্যাংক জমাও রাখেন তবুও ব্যাংক আপনাকে কোটি টাকা দিতে পারবেন না। তাই অতি প্রয়োজন ছাড়া জিপিএফ অগ্রিম গ্রহন না করাই শ্রেয়।

কেউ কেউ হয়তো বলবেন চাকরি শেষে এমনিতেও তো আনুতোষিকের বড় অংক পাওয়া যাবে। হ্যাঁ সেটি চাকরি শেষে আর আপনি আপনার বয়স ৫২ বছর পূর্ণ হলেও জিপিএফ থেকে অফেরতযোগ্য অগ্রীম তুলতে পারবেন। চাকরি ৭ বছর বাকী থাকতেই জিপিএফ এর টাকা তুলে ফেলতে পারবেন।

জিপিএফ মুনাফা হিসাব কিভাবে করে?

বর্তমানে চলতি মাসে অনলাইনে জিপিএফ প্রারম্ভিক জের এন্ট্রি দেয়া হচ্ছে। ইএফটি হওয়ার মাস থেকে জিপিএফ অনলাইনে অটোমেটিক এন্ট্রি হয়ে গেছে। প্রারম্ভিক জের ও ইএফটি পূর্ববর্তী মাসিক জমা কিস্তি বা অগ্রিম গ্রহণের কিস্তিগুলো এন্ট্রি ম্যানুয়ালি দিতে হবে তারপর জিপিএফ ব্যালেন্স ও সুদ ক্যালকুলেশন অটোমেটিক হবে।

জিপিএফ সুদ নির্ণয় পদ্ধতি

অনলাইন আপনি চাইলে এক ক্লিকেই জিপিএফ হিসাব বের করে ফেলতে পারেন। জিপিএফ মুনাফা এবং স্থিতি হিসাব এখন আর জটিল কোন বিষয় নয়। চাইলে আপনিই হিসাব করে ফেলতে পারেন। তো চলুন তথ্য বসাই আর হিসাব কষি: www.bangladesh.gov.bd/gpf/year_end_balance.php

জিপিএফ ক্যালকুলেট

পূর্বের স্থিতি, মাসিক কর্তন, অগ্রিম উত্তোলন, সুদের হার এবং অগ্রিম গ্রহণের তারিখ বসিয়ে প্রতি মাসে অসম চাঁদা বসিয়ে দিন এবং ফলাফল ক্লিক করুন। দেখুন মজা-আপনার বছরান্তে স্থিতি, মুনাফা ইত্যাদি তথ্য দেখাবে। GPF-এর সুদ হিসাবের সূত্র ২০২২

জিপিএফ স্থিতি ও মুনাফা আর কোনভাবে চেক করার উপায় আছে?

আছে। আপনি চাইলে পেনশন এন্ড ফান্ড ম্যানেজমেন্ট সফটওয়্যার ব্যবহার করেও জিপিএফ মুনাফা এবং স্থিতি হিসাব করে বের করতে পারেন। www.cafopfm.gov.bd/calculator.php এই লিংকে ক্লিক করে তথ্য বসান। ব্যাস কাজ শেষ।

GPF CALCULATOR

এখানে ভিন্ন ধর্মী চাঁদা প্রদানের ক্ষেত্রে হিসাব আসবে না। তবে ১২ মাসে একই চাঁদা থাকলে জিপিএফ হিসাব করা যাবে। মুনাফা এবং বছরান্তে জের এখানে দেখা যাবে। প্রতমে GPF Calculator এ ক্লিক করুন এবং Opening Balance, Rate of Interest, Monthly Subscription and Advance Withdrawal ইনপুট দিয়ে Result Click করুন। ব্যাস মুনাফা এবং উদ্বৃত্ত বা জিপিএফ ব্যালেন্স দেখতে পারবেন।

জিপিএফ চূড়ান্ত উত্তোলনের জন্য ৬৬৩ নং ফরম পূরণপূর্বক আবেদনকারী চূড়ান্ত উত্তোলনের জন্য আবেদন করবেন। স্ব-স্ব কর্তৃপক্ষ আবেদনের ভিত্তিতে হিসাবরক্ষণ অফিস কর্তৃক চূড়ান্ত উত্তোলনের অথরিটি ইস্যু করার জন্য পত্র জারী করবেন। হিসাবরক্ষণ অফিস সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা/কর্মচারীর সমুদয় জিপিএফ হিসাবের সুদ ও আসল নির্ণয়পূর্বক অথরিটি ইস্যু করেন। উক্ত অথরিটির ভিত্তিতে স্ব স্ব সরকারি কর্তৃপক্ষ চূড়ান্ত পরিশোধের নিমিত্তে মঞ্জুরীসহ বিল হিসাবরক্ষণ অফিসে দাখিল করেন। অতপরঃ হিসাবরক্ষণ অফিস জিপিএফ চূড়ান্ত বিল পরিশোধ করেন।

জিপিএফ ব্যালেন্স চেক । GPF Online Checking System 2022

(Visited 5,727 times, 1 visits today)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *