আমানতের উপর সুদ

ব্যাংক আমানতের সুদ/মুনাফা হার যৌক্তিকীকরণের নির্দেশনা।

ব্যক্তি পর্যায়ের মেয়াদী আমানত এবং বিভিন্ন সরকারি/বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা/কর্মচারীদের প্রভিডেন্ট ফান্ড, অবসরোত্তর পাওনাসহ বিভিন্ন পাওনা পরিশোধের লক্ষ্যে গঠিত তহবিল বাবদ রক্ষিত যে কোন পরিমাণ মেয়াদী আমানতের উপর সুদ/মুনাফা হার মূল্যস্ফিতি হার অপেক্ষা কোনক্রমেই কম নির্ধারণ করা যাবে না;

ব্যাংকিং প্রবিধি ও নীতি বিভাগ

বাংলাদেশ ব্যাংক

প্রধান কার্যালয়

ঢাকা।

বিআরপিডি সার্কুলার নং-১৭; তারিখ: ০৮ আগস্ট ২০২১

ব্যবস্থাপনা পরিচালক/প্রধান নির্বাহী

ব্যাংলাদেশে কার্যরত সকল তফসিলি ব্যাংক

প্রিয় মহোদয়,

আমানতের সুদ/মুনাফা হার যৌক্তিকীকরণ প্রসঙ্গে।

শিরোনামোক্ত বিষয়ে বিআরপিডি সার্কুলার নং-০১ তারিখ ০৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ এর প্রতি আপনাদের দৃষ্টি আকর্ষন করা যাচ্ছে। উক্ত সার্কুলারের মাধ্যমে আমানতের উপর সুদ/মুনাফা হারের নিম্নগামী প্রবণতা রোধের বিষয়ে সক্রিয় থাকার জন্য আপনাদেরকে নির্দেশনা প্রদান করা হয়।

২। সম্প্রতি ব্যাংকিং খাতে আমানতের সুদ/মুনাফা হার ক্রমান্বয়ে হ্রাস পাচ্ছে। ব্যাংক থেকে প্রাপ্ত বিবরণী পর্যালোচনায় দেখা যায় যে, অধিকাংশ ব্যাংক কর্তৃক মেয়াদী আমানতের উপর মূল্যস্ফীতি হারের চেয়ে কম হারে সুদ/মুনাফা প্রদান করা হচ্ছে। ক্ষুদ্র আমানতকারীসহ অন্যান্য আমানতকারীদের একটি অংশ তাদের জীবিকা নির্বাহের জন্য ব্যাংকে রক্ষিত আমানতের সুদ/মুনাফার উপর নির্ভরশীল। ব্যাংকে রক্ষিত মেয়াদী আমানতের উপর মূল্যস্ফিতি হারের চেয়ে কম হারে সুদ/মুনাফা প্রদান করায় আমানতকারীদের ক্রয়ক্ষমতা হ্রাস পাচ্ছে। ফলশ্রুতিতে তারা ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছেন। তাছাড়া, মেয়াদী আমানতের উপর সুদ /মুনাফা হার অত্যাধিক হ্রাস জনসাধারণের সঞ্চয় প্রবণতাকে নিরুৎসাহিত করে। ফলে আমানতকারীগণ কর্তৃক তাদের সঞ্চিত অর্থ ব্যাংকে জমা রাখার পরিবর্তে ঝুঁকিপূর্ণ খাতসহ বিভিন্ন অনুৎপাদনশীল খাতে নিরুৎসাহিত করে। ফলে আমানতকারীগণ কর্তৃক তাদের সঞ্চিত অর্থ ব্যাংকে জমা রাখার পরিবর্তে ঝুঁকিপূর্ণ খাতসহ বিভিন্ন অনুৎপাদনশীল খাতে বিনিয়োগের প্রবণতা বাড়ছে। ব্যাংক-তহবিলের প্রধান উৎস হলো বিভিন্ন ধরনের আমানতকারীদের নিকট হতে সংগৃহীত আমানত। আমানতের উপর সুদ/মুনাফা হার অতিমাত্রায় হ্রাস পেলে ভবিষ্যতে ব্যাংকের আমনতের উপর এর বিরুপ প্রভাব পড়তে পারে। ফলে, ব্যাংকের দায় সম্পদ ব্যবস্থাপনায়ও ভারসাম্যহীনতা সৃষ্টি হতে পারে।

৩। বর্ণিত প্রেক্ষাপটে, আমানতকারীদের স্বার্থ সুরক্ষা এবং ব্যাংকিং খাতে দায় সম্পদ এর ভারসাম্যহীনতা রোধকল্পে ৩ মাস ও তদুর্ধ্ব মেয়াদী আমানতের উপর সুদ/মুনাফা হার নির্ধারণের ক্ষেত্রে নিম্নবর্ণিত নির্দেশনা প্রদান করা যাচ্ছে:

ক) ব্যক্তি পর্যায়ের মেয়াদী আমানত এবং বিভিন্ন সরকারি/বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা/কর্মচারীদের প্রভিডেন্ট ফান্ড, অবসরোত্তর পাওনাসহ বিভিন্ন পাওনা পরিশোধের লক্ষ্যে গঠিত তহবিল বাবদ রক্ষিত যে কোন পরিমাণ মেয়াদী আমানতের উপর সুদ/মুনাফা হার মূল্যস্ফিতি হার অপেক্ষা কোনক্রমেই কম নির্ধারণ করা যাবে না;

খ) অনুচ্ছেদ নং-৩ (ক) এ বর্ণিত আমানতের উপর কোন নির্দিষ্ট মাসে সুদ/মুনাফা হার নির্ধারণের ক্ষেত্রে ঐ মাসের অব্যবহিত ৩ (তিন) মাস পূর্বের মূল্যস্ফিতি হারকে (বাংলাদেশ ব্যাংকের ওয়েবসাইটে ওয়েবসাইটে প্রকাশিত ১২ মাস ভিত্তিক গড়) বিবেচনায় নিতে হবে; এবং

গ) ঋণ/বিনিয়োগের উপর সুদ/মুনাফা হার বিআরপিডি সাকুর্লার নং-০৩/২০২০ এর নির্দেশনা অনুযায়ী সর্বোচ্চ ৯% অপরিবর্তিত থাকবে।

৪। এ নির্দেশনা অবিলম্বে কার্যকর হবে।

ব্যাংক কোম্পানি আইন, ১৯৯১ এর ৪৫ ধারায় প্রদত্ত ক্ষমতাবলে এ সাকুর্লার জারি করা হলো।

আপনার বিশ্বস্ত,

(মো: আলী আকবর ফরাজী)

মহাব্যবস্থাপক

ফোন: ৯৫৩০২৫২

ব্যাংক আমানতের সুদ/মুনাফা হার যৌক্তিকীকরণের নির্দেশনা: ডাউনলোড

(Visited 179 times, 1 visits today)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *