সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যদের অর্জিত রেমিট্যান্স ২০২২ । জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশন হতে প্রেরিত অর্থের বিপরীতে নগদ সহায়তা

সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যদের অর্জিত রেমিট্যান্স ২০২২ । জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশন হতে প্রেরিত অর্থের বিপরীতে নগদ সহায়তা

ব্যাংকিং চ্যানেলে টাকা পাঠালে পাওয়া যাবে অতিরিক্ত অর্থ বোনাস – জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশন হতে সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যদের অর্জিত রেমিট্যান্স এর বিপরীতে নগদ সহায়তা প্রদান করা হবে – সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যদের অর্জিত রেমিট্যান্স ২০২২

পুলিশ বাহিনীর সদস্যরা জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে অংশ নিয়ে বছরে ৪শ’ কোটি টাকারও বেশি বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করছে। বৈদেশিক মুদ্রার সঙ্গে অস্ত্রশস্ত্র ও যন্ত্রপাতি অর্জন করছে তারা। প্রতি বছরই পুলিশ বাহিনীর সদস্যদের বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন বেড়ে চলেছে। বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা ও অবদান রাখছে বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনী।

বৈধ উপায়ে রেমিট্যান্স প্রেরণের বিপরীতে নগদ সহায়তা প্রদান প্রসঙ্গে’ ১১ মার্চ, ২০২০ তারিখে জারিকৃত একই সার্কুলার পত্র নং-০৮ এবং ১০ সেপ্টেম্বর, ২০২২ তারিখে জারীকৃত একই সার্কুলার পত্র নং-৩১ এর প্রতি আপনাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করা করা হয়েছে। উক্ত সার্কুলার পত্রদ্বয়ের নির্দেশনা অনুযায়ী বিশ্বের বিভিন্ন দেশে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে কর্মরত সেনা/নৌ/বিমান/পুলিশ বাহিনীর সদস্যদের বিদেশে অবস্থানকালীন সময়ে অর্জিত অর্থ বৈধ উপায়ে দেশে প্রেরণ করলে উক্ত অর্থের বিপরীতে প্রণোদনা/নগদ সহায়তা প্রদানের ক্ষেত্রে নিম্নোক্ত কার্যপদ্ধতি অনুসরণের নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে।

জীবনের ঝুঁকি নিয়ে আর্তমানবতার সেবা দিয়ে বিশ্বের ৪০টি দেশে শান্তি প্রতিষ্ঠা করেছে বাংলাদেশ। ৪০টি দেশে জাতিসংঘের ৫৪টি শান্তিরক্ষা মিশন সম্পন্ন হয়েছে। এতে ১ লাখ ৭৬ হাজার ৬৬৯ জন বাংলাদেশি অংশ নিয়েছিলেন।

জাতি সংঘ মিশনের অর্থ অবশ্যই ব্যাংকের মাধ্যমে প্রেরণ করতে হবে / প্রেরিত রেমিট্যান্সের উপর ২.৫% বোনাস বা প্রনোদন প্রদান করা হবে।

রেমিটেন্স প্রনোদনা ২০২২

Caption: Circulars about extra bonus on remittance

বৈধভাবে প্রেরিত অর্থে বোনাস প্রদানের নির্দেশনা ২০২২। মিশনস্থ বাহিনীর রেমিট্যান্সে ২.৫% বোনাস প্রদান করা হবে

  1. জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে কর্মরত সেনা/নৌ/বিমান/পুলিশ বাহিনীর সদস্যদের প্রাপ্ত অর্থের বিপরীতে প্রণোদনার অর্থ ছাড়করণের জন্য সংশ্লিষ্ট সংস্থা তাদের সদস্যদের প্রত্যেকের প্রাপ্যতার তালিকাসহ তাদের ব্যাংক বরাবর আবেদন করবে:
  2. সংশ্লিষ্ট ব্যাংক সেনা/নৌ/বিমান/পুলিশ বাহিনীর আবেদনকৃত অর্থ ছাড়করণের জন্য সশস্ত্র বাহিনীর ‘ক’ ক্রমিকে বর্ণিত তালিকাসহ বাংলাদেশ ব্যাংকের একাউন্টস্ এন্ড বাজেটিং ডিপার্টমেন্ট (এবিডি) বরাবর আবেদন করবে;
  3. সরকার হতে তহবিল পাওয়া সাপেক্ষে এবিডি সংশ্লিষ্ট ব্যাংক বরাবর অর্থ ছাড় করবে এবং
    ঘ) সংশ্লিষ্ট ব্যাংক সশস্ত্র বাহিনী প্ৰদত্ত তালিকা মোতাবেক সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যদের স্ব স্ব ব্যাংক হিসাবে প্রনোদনা/নগদ সহায়তা জমা করবে।
  4. নগদ সহায়তা/প্রণোদনা প্রদানের ক্ষেত্রে ১ লা জুলাই ২০১৯ হতে ৩১ ডিসেম্বর ২০২১ তারিখ পর্যন্ত প্রাপ্ত রেমিট্যান্সের উপর ২% নগদ সহায়তা/প্রণোদনা প্রযোজ্য হবে এবং ১ লা জানুয়ারী ২০২২ হতে প্রাপ্ত রেমিট্যান্সের উপর ২.৫% নগদ সহায়তা/প্রণোদনা প্রযোজ্য হবে।
  5. এতবিষয়ে ইতঃপূর্বে জারিকৃত অন্যান্য নির্দেশনাসমূহ যথারীতি বলবৎ থাকবে।

মিশন হতে কত টাকা পাওয়া যায়?

শান্তিরক্ষা মিশনের শীর্ষ এক কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, বর্তমানে শান্তিরক্ষীরা ১ হাজার ২১০ মার্কিন ডলার মাসিক বেতন পাচ্ছেন। এটি বাড়িয়ে ১ হাজার ৪০০ ডলার করার ব্যাপারে তারা একমত হয়েছেন। প্রায় দের লক্ষ টাকা মাসিক বেতন পায় মিশনস্থ একজন সেনা সদস্য।

(Visited 749 times, 1 visits today)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *