উপবৃত্তি আবেদন ফরম ২০২২

উপবৃত্তির জন্য আবেদন ফরম ২০২২

সমন্বিত উপবৃত্তি কর্মসূচির আওতায় ২০২২ সালে ভর্তিকৃত ৬ষ্ঠ শ্রেণি এবং ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষের ১১শ শ্রেণির উপবৃত্তিযােগ্য শিক্ষার্থী নির্বাচন পদ্ধতি নির্ধারণ ও HSP MIS এ তথ্য এন্ট্রি সংক্রান্ত।

উপবৃত্তি এন্ট্রি- শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের অধীনে প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট্রের বাস্তবায়নাধীন সমন্বিত উপবৃত্তি কর্মসূচির ম্যানুয়াল অনুযায়ী ২০২২ সালের ৬ষ্ঠ এবং ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষের একাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের তথ্য সংগ্রহ, যাচাই এবং HSP-MIS এ তথ্য এন্ট্রির বিষয়ে নিম্ন বর্ণিত পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য অনুরােধ করা হলাে। HSP-MIS এ তথ্য এন্ট্রি ও প্রেরণ: ২০২২ সালের ৬ষ্ঠ, ৯ম (শর্ত সাপেক্ষে) এবং ২০২১-২০২২ শিক্ষাবর্ষের ১১শ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের মধ্যে উপবৃত্তির জন্য আবেদন ফরম বিতরণ, শিক্ষার্থী কর্তৃক যথানিয়মে আবেদন ফরম পূরণপূর্বক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে জমাদান, HSP ম্যানুয়াল মােতাবেক প্রতিষ্ঠান পর্যায়ে গঠিত কমিটির মাধ্যমে শিক্ষার্থীর তথ্য যাচাই-বাছাই, তালিকা প্রণয়ন এবং তালিকা মােতাবেক শিক্ষার্থীদের তথ্য আগামী ১০.০৩.২০২২ তারিখ হতে শুরু করে ১০.০৪.২০২২ তারিখের মধ্যে HSP-MIS এ নির্ভুলভাবে এন্ট্রি করে সফটয়্যারের নির্ধারিত অপশন ব্যবহার করে উপজেলা/থানা শিক্ষা কর্মকর্তার নিকট প্রেরণ করতে হবে।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কর্তৃক HSPMIS এ তথ্য এন্ট্রি এবং প্রেরণ সুবিধাটি ১০.০৪.২০২২ তারিখ রাত ১২ টায় স্বয়ংক্রিয়ভাবে বন্ধ হয়ে যাবে। সকল উপজলাে/থানা মাধ্যমকি শিক্ষা কর্মকর্তা উপজেলা/থানা পর্যায়ে গঠিত কমিটির মাধ্যমে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কর্তৃক HSP-MIS এ এন্ট্রিকৃত এবং উপজেলায় প্রেরতি তথ্যাদি যাচাই-বাছাই করে আগামী ১৭.০৪.২০২২ তারিখের মধ্যে নির্ধারিত অপশন ব্যবহার করে HSP/PMEAT-তে প্রেরণ করতে হবে। সমন্বিত উপবৃত্তি কর্মসূচির আওতাধীন এলাকা: দেশের সকল ভৌগােলিক এলাকার মেট্রোপলিটন ও জেলা সদরের পৌর এলাকাসহ) মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোের্ড এবং বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষা বাের্ডের আওতাধীন মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের সকল স্কুল-কলেজ এবং মাদ্রাসা এই কর্মসূচির আওতাভুক্ত হবে।

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর এবং বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বাের্ডের অধীনে ভর্তিকৃত শিক্ষার্থীরা এ উপবৃত্তি কর্মসূচির আওতাভুক্ত হবে না। উপকারভােগী শিক্ষার্থী নির্বাচন প্রক্রিয়া: দারিদ্র ও প্রক্সি মিন্স টেস্টিং যৌথ পদ্ধতির মাধ্যমে প্রাতিষ্ঠানিক পর্যায়ে তথ্যাদি যাচাই বাছাই এবং একটি বিশেষায়িত সফটয়্যারের মাধ্যমে শিক্ষার্থী নির্বাচন করা হবে। শুধুমাত্র ৬ষ্ঠ এবং ১১শ শ্রেণির শিক্ষার্থীরা এ কর্মসূচির আওতায় উপবৃত্তি প্রাপ্তির আবেদন করতে পারবে। তবে ৯ম শ্রেণির শিক্ষার্থীরা যারা উপবৃত্তি কর্মসূচি বহির্ভূত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে ৮ম শ্রেণি পাস করে নতুন ভর্তি হয়েছে তারা উপবৃত্তির জন্য আবেদন করতে পারবে। তবে নিজ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ৯ম শ্রেণির কোন শিক্ষার্থী উপবৃত্তির জন্য আবেদন করতে পারবে। শিক্ষার্থী অন্য কোনাে সরকারি উৎস থেকে উপবৃত্তি অথবা অভিভাবক কর্তৃক শিক্ষাভাতা গ্রহণ করলে উপবৃত্তির জন্য যােগ্য বলে বিবেচিত হবে না। এছাড়াও শিক্ষা বোর্ড কর্তৃক মেধা/সাধারণ বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থী উপবৃত্তি প্রাপ্তির জন্য অযােগ্য বলে বিবেচিত হবে।

শিক্ষার্থী বাছাই প্রক্রিয়া ২০২২ / তবে নিজ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ৯ম শ্রেণির কোন শিক্ষার্থী উপবৃত্তির জন্য আবেদন করতে পারবে

শুধুমাত্র ৬ষ্ঠ এবং ১১শ শ্রেণির শিক্ষার্থীরা এ কর্মসূচির আওতায় উপবৃত্তি প্রাপ্তির আবেদন করতে পারবে

উপবৃত্তির আবেদন ফরম ২০২২

ক্যাপশন: উপবৃত্তির আবেদন ফরম ২০২২ । উপবৃত্তির জন্য অনলাইনে আবেদন এন্ট্রি প্রক্রিয়া ও নির্বাচন পদ্ধতি

উপবৃত্তি উপকারভােগী শিক্ষার্থী নির্বাচন প্রক্রিয়া ২০২২

  1. শিক্ষা মন্ত্রণালয় কর্তৃক অনুমােদিত নীতিমালা ও গাইডলাইন অনুসরণের মাধ্যমে সারাদেশে ৬ষ্ঠ, ৯ম (শর্ত সাপেক্ষে) ও ১১শ শ্রেণির আবেদনকৃত শিক্ষার্থীদের মধ্য থেকে উপকারভােগী শিক্ষার্থী নির্বাচন করা হবে। উপকারভােগী শিক্ষার্থী নির্বাচনে নিন্মবর্ণিত পদ্ধতি অনুসরণ করা হবে।
  2. দারিদ্র্য নিরূপণের জন্য বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরাের Household Income Expenditure Survey 2016
    (HIES-২০১৬) এ ব্যবহৃত প্রশ্নমালার উপর ভিত্তি করে একটি নমুনা আবেদনপত্রে (সংলগ্নী-১) আবেদন করতে হবে। প্রাতিষ্ঠানিক ও উপজেলা/মেট্রাপলিটান এলাকার উপদেষ্টা কমিটি শিক্ষার্থীর আবেদনের তথ্যাদির সত্যতা যাচাই বাছাই করার জন্য দায়ী থাকবে।
  3. আবেদনপত্রসমূহের তথ্যাদি যাচাই বাছাই শেষে প্রতিষ্ঠান পর্যায়ে HSP MIS এ সকল তথ্য এন্ট্রি করতে হবে। তথ্য এন্ট্রির পর প্রতিষ্ঠান থেকেই তথ্যাদি অনলাইনে উপজেলা/থানা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা বরাবর প্রেরণ করতে হবে। উপজেলা/থানা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা উপবৃত্তির জন্য উপজেলা/থানায় প্রেরিত সকল আবেদনপত্র উপজেলা/মেট্রোপলিটন এলাকার উপদেষ্টা কমিটির বিবেচনার জন্য পেশ করবেন এবং এডভাইজারি কমিটির অনুমােদন নিয়ে নির্বাচিত শিক্ষার্থীর তথ্য উপজেলা/থানা হতে HSP/PMEAT-তে প্রেরণ করবেন।
  4. সারাদেশের উপবৃত্তি উপকারভােগী শিক্ষার্থী কেন্দ্রীয়ভাবে প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট অফিসের MIS Cell-এর প্রযুক্তিগত সহায়তায় HSP (Harmonized Stipend Program) Unit কর্তৃক নির্বাচিত হবে। উপকারভােগী শিক্ষার্থী নির্বাচন লৈঙ্গিক ভিত্তিতে নয় বরং দারিদ্র্যের ভিত্তিতে নির্বাচিত হবে। ফলে এই প্রক্রিয়ায় নির্বাচিত ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যা কম বেশি হতে পারে। শারীরিক প্রতিবন্ধী, তৃতীয় লিঙ্গ, প্রাক্তন ছিটমহলের বাসিন্দা এবং মুক্তিযােদ্ধার প্রজন্ম যথাযথ যাচাই বাছাইয়ের পর সরাসরি এই কর্মসূচিতে অন্তর্ভুক্ত হবে। তবে এই ক্ষেত্রে যথাযথ কর্তৃপক্ষ কর্তৃক প্রদত্ত সনদ/প্রত্যায়ন পত্রের সত্যায়িত কপি MIS-এ সংযুক্ত এবং সংরক্ষণ করতে হবে।
  5. সকল শিক্ষার্থীর ১৭ সংখ্যার অনলাইন জন্মসনদ থাকার বিষয়টি নিশ্চিত করতে হবে। উপবৃত্তির জন্য শিক্ষার্থীর তথ্য HSP MIS এ এন্ট্রি করলেই উপবৃত্তি প্রাপ্তির নিশ্চয়তা প্রদান করে না। আবেদনকারী শিক্ষার্থী প্রদত্ত তথ্যাদি HSP MIS এর মাধ্যমে বিশ্লেষণ করে উপবৃত্তি প্রাপ্তির জন্য শিক্ষার্থী নির্বাচন করা হয়। ৮। প্রাতিষ্ঠানিক পর্যায়ের আবেদনপত্র যাচাই-বাছাই কমিটি: প্রাতিষ্ঠানিক পর্যায়ের কমিটি শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে প্রাপ্ত আবেদনপত্রের তথ্যাদি যথাযথভাবে যাচাই-বাছাই করবেন। কমিটির সদস্যগণ প্রয়ােজনে শিক্ষার্থীর বাড়ি পরিদর্শন করে আবেদনপত্রে প্রদত্ত তথ্যাদির সত্যতা যাচাই-বাছা যাচাই বাছাই শেষে শিক্ষার্থীদের তথ্যাদি HSP-MIS এ এন্ট্রি করে আবেদনপত্রের সকল তথ্যাদি সঠিক আছে” মর্মে একটি প্রত্যায়নপত্র শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধান উপজেলা/থানা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা বরাবর প্রেরণ করবেন এবং আবেদনপত্রের হার্ডকপিসমূহ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সংরক্ষণ করবেন। তবে প্রতিষ্ঠান পর্যায়ের কমিটিতে উপকারভােগী নির্বাচনে কোনাে অসত্য তথ্য প্রদান বা অনিয়ম করা হলে তা শাস্তিযােগ্য অপরাধ হিসাবে বিবেচিত হবে। এই কমিটি প্রয়ােজনে যেকোনাে সময়ে সভায় মিলিত হতে পারবে।
  6. টিউশন ফি মওকুফ: সরকারি ও বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অধ্যয়নরত উপবৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের টিউশন ফি/বেতন মওকুফ থাকবে। বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে উপবৃত্তি প্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের অনুকূলে স্কিম ডকুমেন্ট মােতাবেক নির্ধারিত হারে টিউশন ফি/বেতন প্রদান করা হবে। উপবৃত্তি প্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের নিকট হতে কোনক্রমেই টিউশন ফি বেতন আদায় করা যাবে না।
  7. নতুন প্রতিষ্ঠান অন্তর্ভুক্তি: নতুন কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বাের্ড এবং বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষা বাের্ড কর্তৃক পাঠদানের অনুমতি বা স্বীকৃতি পেলে উক্ত প্রতিষ্ঠান সমন্বিত উপবৃত্তি কর্মসুচির অন্তর্ভুক্ত হতে পারবে। সেক্ষেত্রে HSP-MIS এর ইউজার আইডি ও পাসওয়ার্ডের জন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানকে প্রয়ােজনীয় কাগজপত্রসহ উপজেলা/থানা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তার মাধ্যমে স্কিম পরিচালক বরাবর আবেদন করতে হবে।
  8. তথ্য এন্ট্রি: > শিক্ষার্থীর জন্মসনদ নম্বর অবশ্যই ১৭ ডিজিটের হতে হবে। পিতা/মাতা/অভিভাবকের জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর (১০ অথবা ১৭ সংখ্যা) অবশ্যই এন্ট্রি করতে হবে। ১৩ সংখ্যার জাতীয় পরিচয়পত্রের ক্ষেত্রে প্রথমে জন্মসাল বসিয়ে ১৭ সংখ্যায় রূপান্তর করতে হবে। শিক্ষার্থীর উপবৃত্তি অর্থ প্রাপ্তির ক্ষেত্রে যে কোন বৈধ/সচল অনলাইন ব্যাংকামােবাইল ব্যাংকিং একাউন্ট ব্যবহার করতে হবে।
  9. অনলাইন/এজেন্ট ব্যাংক এর ক্ষেত্রে একাউন্ট নম্বর ১৩-১৭ ডিজিট এবং মােবাইল ব্যাংকিং এর ক্ষেত্রে একাউন্ট নম্বর ১১-১২ ডিজিট হতে হবে। শিক্ষার্থীর অভিভাবক হবেন পিতা অথবা মাতা। কেবল মাত্র পিতা মাতার অনুপস্থিতিতে অন্য কোন ব্যক্তিকে (ভাই/বােন/ দাদা/দাদী/নানা/নানী/ইত্যাদ) অভিভাবক হিসাবে নির্বাচন করা যাবে।

নির্বাচন পদ্ধতি নির্ধারণ হয় কিভাবে?

HSP-MIS এ তথ্য এন্ট্রির সময় পিতাকে অভিভাবক নির্বাচিত করলে পিতার জাতীয় পরিচয়পত্র (NID) ব্যবহার করে একাউন্ট খুলতে হবে এবং অভিভাবক ও হিসাবধারীর নাম হিসাবে পিতার নাম এন্ট্রি করতে হবে। অভিভাবক হিসাবে মাতাকে নির্বাচিত করলে মাতার জাতীয় পরিচয়পত্র (NID) ব্যবহার করে একাউন্ট খুলতে হবে এবং অভিভাবক ও হিসাবধারীর নাম হিসাবে মাতার নাম এন্ট্রি করতে হবে। পিতা/মাতার অনুপস্থিতিতে অন্য কোন ব্যক্তিকে (ভাই/বােন/দাদা/দাদী/নানা/নানী/ইত্যাদ) অভিভাবক হিসাবে নির্বাচিত করলে তার জাতীয় পরিচয়পত্র ব্যবহার করে একাউন্ট খুলতে হবে এবং অভিভাবক ও হিসাবধারীর নাম হিসাবে তাঁর নাম এন্ট্রি করতে হবে। স্কুল ব্যাংকিং/এজেন্ট ব্যাংকিং এর ক্ষেত্রে যার নামে একাউন্ট খােলা হয়েছে হিসাবধারীর নাম হিসাবে তার নাম এন্ট্রি করতে হবে। সংশ্লিষ্ট উপজেলা/থানা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা তাঁর আওতাধীন সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানগনকে উক্ত বিষয়টি অবহিতকরণসহ মনিটরিং করবেন। উল্লেখ্য যে, নির্ধারিত সময়ের মধ্যে কার্যক্রম সম্পন্ন করতে ব্যর্থ হলে সৃষ্ট যে কোন সমস্যার জন্য সংশ্লিষ্ট শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধান এবং উপজেলা/থানা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা দায়ী থাকবেন।

উপবৃত্তির জন্য আবেদন ফরম ২০২২ PDF: ডাউনলোড

সূত্র: সমন্বিত উপবৃত্তি কর্মষূচির আওতায় ২০২২ সালে ভর্তিকৃত ৬ষ্ঠ শ্রেণি এবং ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষের ১১শ শ্রেণির উপবৃত্তিযোগ্য শিক্ষার্থী নির্বাচন পদ্ধতি নির্ধারণ ও HSP-MIS এ তথ্য এন্ট্রি সংক্রান্ত। উপবৃত্তি অনলাইন আবেদন ফরম

(Visited 6,070 times, 2 visits today)

13 comments

      1. ভাইয়া আমি একাদশ শ্রেণির ছাত্র এখন ও উপবৃত্তি পাই নাই একারন কি, আমি পাবও না ভাইয়া। একটু দয়া করে বলবেন।

        1. আপনি সঠিকভাবে আবেদন করেছিলেন? তথ্য ঠিকঠাক মত না দিলে উপবৃত্তির আবেদন বাতিল হতে পারে। আপনি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে খোজ নিন।

  1. ভাই একটু দয়া করে বলবেন প্লিজ আমি অনেক অসহায়, আমি কি এখন আবেদন করতে পারবো কি,

    1. আবেদন করেছেন যেখানে সেখানে যোগযোগ রাখুন অনুগ্রহ করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *