নতুন ভোটার নিবন্ধন ২০২২ । আবেদনকারীকে যে সকল দলিলাদি সংযুক্ত করতে হবে

নতুন ভোটার নিবন্ধন ২০২২ । আবেদনকারীকে যে সকল দলিলাদি সংযুক্ত করতে হবে

নতুন ভোটার নিবন্ধনের জন্য থানা নির্বাচন অফিসার ও রেজিস্ট্রেশন অফিসারের কার্যালয় হতে ভোটার নিবন্ধন ফরম সংগ্রহ করে অথবা Services.nidw.gov.bd ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে অনলাইনে ভোটার নিবন্ধন ফরম-২ পূরণপূর্বক প্রিন্ট করে হার্ড কপিতে আবেদনকারীর স্বাক্ষর, শনাক্তকারীর স্বাক্ষর এবং যাচাইকারীর সীলসহ স্বাক্ষর প্রদান করে স্বশরীরে অত্রাফিসে উপস্থিতি হয়ে আবদেনকারীকে নিম্নোক্ত কাগজপত্রসহ ভোটার রেজিস্ট্রেশন কার্যক্রম সম্পন্ন করতে হবে।

ভোটার তথ্য হালানাগাদ – ভোটার তথ্য হালানাদ মানে পুরাতন ভোটার তথ্য সংশোধন বা হালনাগাদ নয় এটি মূলত ০১/০১/২০০৭ তারিখের পূর্বে যাদের জন্ম অর্থাৎ যাদের বয়স ১৬ বছর অতিক্রম করেছে তারাই নতুন ভোটারের আওতায় আসবে– জন্ম নিবন্ধন অনলাইন আবেদন ২০২২ । জন্ম নিবন্ধনে ডকুমেন্টগুলো কি কি?

নতুন ভোটারগণ আইডি কার্ড কবে পাবেন? এ যারা ভোটার হিসাবে নিবন্ধিত হয়ে NID কার্ড পাচ্ছেন, তাদের ভিতর যাদের জন্মতারিখ ০১-০১-২০০৫ পর্যন্ত, তাদের খসড়া ভোটার তালিকা ২০২৩ সালের জানুয়ারি মাসে প্রকাশিত হবে। উক্ত খসড়া ভোটার তালিকা প্রকাশিত হওয়ার পরে উক্ত খসড়া ভোটার তালিকায় নাম আছে এমন কারো কোনো তথ্যে ভুল থাকলে তিনি ২০২৩ সালের জানুয়ারি মাসে বিনা খরচে ফ্রি ফ্রি তার তথ্য সংশোধন করে তার NID কার্ডের তথ্যের ভুল সংশোধন করে নিতে পারবেন। জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন ২০২২ । আগামী জানুয়ারি মাসে বিনা খরচে সংশোধন করা যাবে

নতুন ভোটার হওয়ার কার্যক্রম ডিসেম্বর পর্যন্ত চলবে। জানুয়ারিতে খসড়া প্রকাশ করা হবে। খসড়া সংশোধন প্রক্রিয়া চলমান থাকবে মার্চ পর্যন্ত। যদিও বর্তমান কার্যক্রমের মধ্যেও আপনার ভোটার প্রক্রিয়া সম্পন্ন না হয় তবে আপনাকে অনলাইনে আবেদন করতে হবে অথবা আপনি ফরম পূরণ করে নিম্নেবর্ণিত কাগজপত্র সহ আবেদন করতে পারেন।NID Transfer System 2022 । ভোটার এলাকা পরিবর্তন করতে কি কি লাগে

ভোটার হওয়ার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ২০২২ । অনলাইনেই আপনি ভোটার হওয়ার আবেদন করতে পারেন

Caption: Document for New Voter Registration

নতুন ভোটর নিবন্ধনের জন্য আবেদনকারীকে যে সকল দলিলাদি সংযুক্ত করতে হবে

  • ১। শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদ (পিএসসি/জেএসসি/এসএসসি)।
  • ২। অনলাইন জন্ম নিবন্ধন সনদ।
  • ৩। সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড কাউন্সিলর কর্তৃক নাগরিকত্ব সনদ।
  • ৪। পিতা মাতার জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি।
  • ৫। স্বামী/স্ত্রীর জাতীয় পরিচয়পত্র, কাবিননামার ফটোকপি (বিবাহিতদের ক্ষেত্রে)।
  • ৬। হোল্ডিং ট্যাক্স/পানির বিল/জমির মিউটেশন কপি।
  • ৭। ভাড়াটিয়ার ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট থানা থেকে ভাড়াটিয়া তথ্য ফরম।
  • ৮। বাড়িওয়ালার NID কার্ডের ফটোকপি ও অনাপত্তিপত্র/প্রত্যয়নপত্র মোবাইল নম্বরসহ (ভারাটিয়াদের ক্ষেত্রে)।
  • ৯। প্রবাসী হলে পাসপোর্টের ফটোকপি এ্যারাইভাল পর্যন্ত।
  • ১০। শিক্ষার্থীদের পরিচয়পত্রের কপি।
  • ১১। দ্বৈত নাগরিক হলে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সেবা সুরক্ষা শাখা হতে দ্বৈত নাগরিকত্ব সনদের কপি।
  • ১২। ফরম-২ এর ৩৪ , ৩৫ নম্বর তথ্যে শনাক্তকারীর জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর ও স্বাক্ষর প্রদান করতে হবে। (শনাক্তকারী সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডের ভোটার এমন কোন ব্যক্তি (পিতা, মাতা, স্বামী, স্ত্রী বাদে)।
  • ১৩। ফরম২ এর ৪০, ৪১, ৪২ নম্বর তথ্যে যাচাইকারী কর্তৃক জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর এবং সীলসহ স্বাক্ষর প্রদান করতে হবে (যাচাইকারী বলতে সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড কাউন্সিলরকে বুঝাবে)।
  • ১৪। রেজিস্ট্রেশন অফিসারের চাহিদামত অন্যান্য দলিলাদি।

নির্বাচন কমিশনের অফিসে গিয়ে কি নতুন ভোটার হওয়ার আবেদন দাখিল করা যাবে?

হ্যাঁ যাবে। প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সহ নির্ধারিত ফরম পূরণ পূর্বক আপনি নতুন ভোটার হওয়ার আবেদন করতে পারবেন। নিবন্ধন ফরম (ফরম-২) ফরম নম্বর PDF Download. নতুন ভোটার হওয়ার জন্য আবেদন ফরম আপনি অনলাইন থেকে সংগ্রহ করতে পারেন অথবা নির্বাচন কমিশনে গিয়েও সংগ্রহ করতে হবে। তবে আমাদের পরামর্শ আপনি অনলাইনে আবেদন ফরম পূরণ করে রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন করুন। অনলাইনে রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন

নতুন ভোটার নিবন্ধনের জন্য আবেদনকারীকে যে সকল দলিলাদি সংযুক্ত করতে হবে: ডাউনলোড

সূত্র: থানা নির্বাচন অফিসারের কার্যালয়

ভোটার আইডি কার্ড যাচাই পদ্ধতি ২০২২ । ছবি সহ যে কারও জাতীয় পরিচয়পত্র যাচাই করুন

(Visited 977 times, 9 visits today)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *