নিজেই বিকাশ একাউন্ট খুলবেন যেভাবে।

আসসালামু আলাইকুম বন্দুরা। আপনারা সকলেই হয়তো জানেন বিকাশ তাদের এ্যাপটি নতুন করে ডিজাইন করেছে। আজ আমি আপনাদেরকে শিখাবো নেই কিভাবে বিকাশ একাউন্ট খুলবেন নিজে নিজে।

বিকাশ অ্যাপ দিয়ে হিসাব খেলা

এই নতুন এ্যাপ নতুন এবং সব থেকে ইন্টারেস্টিং  এবং ইমপরটেন্ট ফিচার হলো এই এ্যাপ থেকে ঘড়ে বসেই কোন প্রকার এজেন্ট এর সাহায্য ছাড়াই যাস্ট একটি ন্যাশনাল আইডি কার্ড এর সাহায্যে বিকাশ একাউন্ট খুলতে পারবেন। আজকে আমি আমাদের সামনে তুলে ধরব কিভাবে নতুন বিকাশ এ্যাপের মাধ্যমে ঘরে বসে আইডি কার্ড ব্যাবহার করে খুলবেন এবং ১০০ টাকা বোনাস হিসেবে পাবেন।

সবার প্রথমে গুগল প্লে স্টোর থেকে আপডেট বিকাশ এ্যাপটি ডাউনলোড করে নিবেন/আপডেট করে নিতে হবে।

তার বিকাশ এ্যাপটি ওপেন করার পর সবার উপরে Login/Registration এ প্রেস করতে হবে। তারপর নিচ থেকে New Account Registration এ প্রেস করতে হবে। তারপর আমরা যে নাম্বার দিয়ে বিকাশ একাউন্ট ওপেন করতে চাচ্ছি সেই নাম্বার টি টাইপ করত হবে এবং অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে যে নাম্বার দিয়ে আপনি বিকাশ একাউন্ট ওপেন করতে চাচ্ছেন সেই সিমটি অবশ্যই এ্যাপ ওপেকৃত ফোনে প্রবেশ করা থাকতে হবে। তা নাহলে কিন্তু যে ভেরিফিকেশন কোডটি যাবে সেই কোডটি আপনার সিমে যাবে না। নাম্বারটি টাইপ করার পর ok প্রেস করার পর নাম্বারটি কোন অপারেটরের তা সিলেক্ট করতে হবে।

তারপর বিকাশ থেকে একটি ভেরিফিকেশন কোড আসবে যা বিকাশ এ্যাপ অটোমেটিক নিয়ে নিবে। তারপর বিকাশ এ্যাপ আপনার কাছে জানতে চাবে কোন ভাষায় আপনি বিকাশ এ্যাপ ব্যাবহার করবেন। বাংলা/ English। ধরে নিলাম আপনি ইংরেজি ভাষা নির্বাচন করলেন। ঠিক তারপরই বিকাশ এর ট্রাম এবং কনটিশন অপশনটি আসবে (যদি কারো হাতে পর্যাপ্ত সময় থাকে তাহলে সকল ট্রামস/কন্ডিশন গুলো পড়ে নিতে পারেন) যেখানে Agree করার মাধ্যমে আপনি পরবর্তী ধাপ যেতে পারবন। ট্রামস/কন্ডিশন Agree করার পর একটি স্ক্রিন আসবে যেখানে টোটাল তিনটি অপশনের মাধ্যমে আপনি আপনার বিকাশ এ্যাকাউন্ট খুলতে পারবেন। অর্থাৎ সবার প্রথমে অপশনটি হলো NID দুপাশের ছবি তোলা। স্ক্রিনে সবার নিচে দেখতে পারবেন লেখা আছে Take NID Photo। এই অপশনটিতে প্রেস কররা পর দেখবেন NID এর ছবি তোলার অপশন আসছে। বিকাশ এ্যাপ দিয়ে ক্যামেরা ব্যবহার করতে গেলে প্রথমে ক্যামেরা ব্যবহার Allow করে নিতে হবে। প্রথমে NID এর সামনের ছবি তুলতে হবে। খেয়াল রাখতে হবে যাতে ছবি একদম পরিষ্কার আসে। সামনের পাশের ছবি তোলা হয়ে গেলে ঠিক একই ভাবে NID এর পিছনের অংশের ছবি তুলতে হবে। NID এর দুইপাশের ছবি সঠিক ভাবে তোলার পর দেখতে পাবেন Submission অপটশ। যাতে প্রেস করলে আপনার সামনে NID এর সার্ভার থেকে আপনার সকল তথ্য চলে আসবে। তথ্য গুলো ভাল করে দেখে নিবেন ঠিক আছে কিনা। যদি ঠিক না থাকে তাহলে আপনি আপনার তথ্য এডিট করে নিতে পারবেন। সকল তথ্য ঠিকঠাক থাকলে নিচের Next অপশনে প্রেস করবেন।

হিসাব খোলার চূড়ান্ত পর্যায়

তারপর Fill Information নামে নতুন একটি ইউনডো আসবে যেখানে আপনি আপনার Gender অপশন থেকে Male/Female নির্বাচন করবেন। তারপর Surce of Fund নির্বাচন করতে হবে। তারপর Estimated Monthly Income নির্বাচন করতে হবে এবং সর্বশেষ আপনার পেশা (Occupation) নির্বাচন করতে হবে। খুব সহজেই আপনি ড্রপডাউন মেনু থেকে আপনি আপনার চাহিত অপশন নির্বাচন করতে পারবেন। চারটি অপশন সঠিক ভাবে পূরণ করার পর Next অপশনে প্রেস করতে হবে।

তারপর Take a photo of your face স্ক্রিণটি আসবে। যেখানে কিভাবে আপনি আপনার ফেইসের ছবি নিবেন তার বর্ণণা দেয়া আছে। অর্থাৎ আপনার ফোনটা হাতে নিয়ে আপনার একটি সেলফি তুলত হবে। যখন আপনারা Take a photo তে প্রেস করবেন তখন গোল একটি ক্যামেরা ওপেন হবে। ক্যামেরায় যখন আপনার ফেইসটা রাখবেন তখন দেখতে পাবেন একটি প্রোগ্রেস বার। যখন আপনার ফেইস ক্যামেরায় ঠিক মতন পাবে তখন ঔ প্রোগ্রেস বারটি বারতে থাকবে এবং একটি পর্যায়ে আপনার চোখের পাতা নাড়াতে বলবে। চোখের পাতা নাড়ানোর জন্য ক্যামেরা বুঝতে পারবে যে আপনি ফেইক বিকাশ ওপেন করতেছেন না। ফোট তোলা হয়ে গেলে Submit Information একটি অপশন আসবে। যেখানে লেখা থাকে বিকাশ আপনার তথ্য যাচাইয়ের জন্য ৪৮ ঘন্টা সময় নিবে। কিন্তু আপনারা বেশির ভাগ ক্ষেত্রে দেখতে পারবেন যে ২/৩ মিনিট সময়ের মাঝে বিকাশ একাউন্ট ভেরিফিকেশন হয়ে যায়। তারপর Submitted নামে একটি ইউনডো ওখান থেকে Continue তে প্রেস করবেন। তারপর আপনারা খেয়াল করবেন বিকাশ আপনাদের ২/৩ এসএমএস পাঠাবে। একটি এসএমএস এ পাবেন আপনাদের বিকাশ রেজিস্ট্রেশন রেফারেন্স নাম্বার। আর একটি এসএমএস এ বলা থাকবে আপনারা যেন ৩ দিনের মধ্যে আপনাদের বিকাশের জন্য পিন/পাসউয়াড সেট করেন এবং ৩ নাম্বার এসএমএস এ থাকবে আপনাদের জন্য ৫০ টাকা ফ্রি।

USSD কোড ডায়াল করে পিন সেট

এখন পরবর্তী ধাপ হলো বিকাশের পিন/পাসউয়াট সেট করা। এজন্য আপনার ফোন থেকে *২৪৭# ডায়াল করতে হবে। তারপর ১ দিয়ে রিপ্লাই করতে হবে। তারপর ৫ ডিজিটের একটি পিন সেট করতে হবে। এক্ষেত্রে খেয়াল রাখতে হবে আপনারা যদি একটি সহজ পিন দেন যেমন-১২৩৪৫, তাহলে কিন্তু বিকাশ পিনটি গ্রহণ করবে না। এমন একটি পিন দিতে হবে যাতে প্রতারক চক্র সহজেই আপনার বিকাশ একাউন্ট এ প্রবেশ করতে না পারে। পিন নাম্বারটি একবার দেবার পর দ্বিতীয় বার আবার দিতে হবে কনফার্ম করার জন্য। তারপর দেখবেন একটা এসএমএস আসবে যেখানে লেখা থাকবে আপনার বিকাশ একাউন্ট ব্যবহারের জন্য এখন তৈরী। অর্থাৎ এখন থেকেই আপনি আপনার বিকাশ একাউন্টের সকল ফিচার ব্যবহার করতে পারবেন।

এখন আপনারা কি করবেন আপনাদের যে বিকাশ এ্যাপটি আছে সেটি ওপেন করবেন। এ্যাপটি ওপেন হবার পর দেখতে পাবেন আপনাদের যে নাম্বার দিয়ে বিকাশ একাউন্ট করেছেন সেটা টাইপ হয়ে আছে। যদি টাইপ করা না থাকে তাহলে টাইপ করে নিবেন। তারপর ওকে প্রেস করার পর দেখবেন আপনাদের ফোনে আরও একবার ভেরিফিকেশন কোড আসবে। ভেরিফাইড হবার পর আপনাদের পিন দিয়ে এ্যপে প্রবেশ করতে হবে। তারপর আরও একবার এ্যাপের জন্য Language ভাষা নির্বাচন করতে হবে। এক্ষেত্রে আমি ইংরেজি নির্বাচন করে দিলাম। তারপর যে স্ক্রিণ টা আসবে তাতে আপনাদের নামের First Name এবং Last Name টাইপ করে ওকে প্রেস করতে হবে। তারপর দেখবেন সাথে সাথে আরও একটি এসএমএস আসবে যেখানে লেখা আছে আপনি আরও ৫০ টাকা ক্যাস ব্যাক পেয়েছেন। অর্থাৎ আপনি মোট ১০০ টাকা ব্যালেন্স হিসেবে পেলেন। তাপরপ আপনি চাইলে আপনার বিকাশ এ্যাপে আপনার ছবি যুক্ত করতে পারেন অথবা চাইলে Skip করতে পারেন।

৫০ টাকা ফ্রি বোনাস

আপনি আপনার বিকাশ এ্যাপের মাধ্যমে আরও ৫০ টাকা ফ্রি বোনাস পেতে পারেন। আপনি যদি বিকাশ ব্যালেন্স থেকে ১ম লেনদেন হিসেবে আপনার বিকাশ নাম্বারে ২৫ টাকা রির্চায করেন তাহলে সাথে সাথে আপনি আরও ৫০ টাকা পেতে পারেন।

আসা করি এখন সকলেই ঘরে বসে নিজে নিজেই বিকাশ একাউন্ট করতে একটিভ করতে পারবেন।

চাইলে আপনি এ সংক্রান্ত ভিডিও দেখে নিতে পারেন।

(Visited 83 times, 1 visits today)

Leave a Reply

Your email address will not be published.

close