বিসিএস পরীক্ষা বিজ্ঞপ্তি ২০২২ । ৪৫ তম বিসিএস সার্কুলার pdf Download করুন

বিসিএস পরীক্ষা বিজ্ঞপ্তি ২০২২ । ৪৫ তম বিসিএস সার্কুলার pdf Download করুন

বিসিএস নতুন সার্কুলার প্রকাশিত – ২৩ ক্যাটাগরিতে ২৩০৯ ক্যাডার পদে নিয়োগ প্রদান করা হবে– বিসিএস পরীক্ষা বিজ্ঞপ্তি ২০২২

What is BCS? বিসিএস পরীক্ষা বা বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস পরীক্ষা হল দেশব্যাপী পরিচালিত একটি প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষা যা বাংলাদেশ পাবলিক সার্ভিস কমিশন (বিপিএসসি) কর্তৃক বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিসেরবিসিএস (প্রশাসন), বিসিএস (কর), বিসিএস (পররাষ্ট্র) ও বিসিএস (পুলিশ) সহ ২৬ পদে কর্মকর্তা নিয়োগের জন্য পরিচালিত হয়। যা পূর্বে ২৭টি ছিল, ২০১৮ সালে ইকোনমিক ক্যাডারকে প্রশাসন ক্যাডারের সাথে একত্রিত করে। বিসিএস পরীক্ষা পর্যায়ক্রমে তিনটি ধাপে অনুষ্ঠিত হয়- প্রাথমিক পরীক্ষা (এমসিকিউ), লিখিত পরীক্ষা এবং মৌখিক পরীক্ষা (ইন্টারভিউ)। পরীক্ষার বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ থেকে চূড়ান্ত ফলাফল পর্যন্ত সমগ্র প্রক্রিয়া সম্পন্ন হতে ১.৫ থেকে ৪ বছর সময় লাগে। 40th bcs viva result 2022 । ৪০তম বিসিএস ফলাফল দেখুন

বিসিএস পরীক্ষায় অংশগ্রহণের যোগ্যতা কি? উচ্চ মাধ্যমিক পাসের পর চার বছরের অনার্স পাস হলেও বিসিএস পরীক্ষায় আবেদন করা যায়। কেউ যদি তিন বছরের অনার্স বা পাস কোর্সে পড়ে থাকে তাহলে তাকে অবশ্যই মাস্টার্স পাস হতে হবে। শিক্ষা জীবনে একের অধিক তৃতীয় শ্রেণি (3rd Class) থাকলে বিসিএস পরীক্ষায় আবেদনের অযোগ্য। প্রাথমিক পরীক্ষা ২০০ নম্বরের হয়। প্রতিটি সঠিক উত্তরের জন্য ১ নম্বর যোগ করা হয়। কিন্তু একটি ভুল উত্তরের জন্য মোট নম্বর থেকে ০.৫ নম্বর করে কাটা হয়। ১০ টি বিষয়ের উপর নৈর্বক্তিক প্রশ্ন থাকে। সময় থাকে মাত্র ২ ঘণ্টা। Bangladesh Civil Service Recruitment Rules 1981 বিসিএস নিয়োগ বিধিমালা ১৯৮১

নিয়োগ পেলে প্রাথমিক বেতন কত? জাতীয় বেতনস্কেল, ২০১৫ অনুসারে টাকা ২২০০০-৫৩০৬০/- বেতনক্রমে একজন বিসিএস কর্মকর্তার প্রাথমিক মূল বেতন ২২০০০ টাকা ধরা হয়েছে। তার বেতন ভাতাদি একই স্কেলে সর্বোচ্চ বেড়ে ৫৩০৬০ টাকা হতে পারবে। সিলিংয়ে পৌছে গেলে আর বেতন বাড়বে না। তবে পদোন্নতির সাথে সাথে তার গ্রেড ৯ থেকে ৩য় বা ৪র্থ গ্রেডেও চলে আসতে পারে। তো চলুন চাকরি জীবনের শুরুতে তিনি কত টাকা বেতন পেতে পারে তার একটি স্বারণি আমরা দেখে নিই। বিসিএস ক্যাডার বেতন স্কেল ২০২২

বাংলাদেশী শিক্ষিত যুব সমাজের একমাত্র পছন্দের প্রথম ক্যাটাগরির চাকরি হচ্ছে বিসিএস ক্যাডার পদ / এ পদে বেতন ও সম্মান দুটোই পাওয়া যায়।

জাতীয় বেতন স্কেল ২০১৫ অনুযায়ী বিসিএস ক্যাডারদের বেতন হয় ৯ম গ্রেডে। ৯ম গ্রেডের মূল বেতন বা বেসিক (basic) হচ্ছে ২২ হাজার টাকা তবে ক্যাডারগণ শুরুতেই একটি এনক্রিমেন্ট (মূল বেতনের ৫%) পান তাই তারা বেতন পান ২৩,১০০ টাকা। এখানেই শেষ নয় Technical cadre যেমন ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার, কৃষি ক্যাডার বা সাধারণ শিক্ষা ক্যাডারদের অনার্স বা মাস্টার্সে যদি প্রথম শ্রেণি থাকে তাহলে আরও একটি ইনক্রিমেন্ট পেয়ে সেটা দাঁড়ায় ২৪,২৫৫ টাকা তবে রাউন্ড আপ হিসাবে ২৪,২৬০ টাকা প্রদান করা হয়। যদি তাদের দুইটিতেই দ্বিতীয় শ্রেণি থাকে তাহলে তারা ১টি ইনক্রিমেন্ট পাবেন। এমনকি যথেষ্ট প্রাতিষ্ঠানিক যোগ্যতা থাকলে বিসিএস ক্যডার ডাক্তারগণ ২৫,০০০ টাকা বেসিক অর্থাৎ তিনটি ইনক্রিমেন্টও পেতে পারেন। তবে এটা মূল বেতন বা বেসিক (Basic Salary); এর সাথে যুক্ত হবে বাড়ি ভাড়া আর চিকিৎসা ভাতা। বাড়ি ভাড়া পোস্টিং এর উপর নির্ভর করে। একটি ইনক্রিমেন্টের ক্ষেত্রে ঢাকা সিটি করপোরেশন এলাকায় পোস্টিং হলে সেটা হবে ৫৫% = ১২,৭০৫ টাকা। যদি অন্যান্য সিটি কর্পোরেশন এলাকায় পোস্টিং হয় তাহলে হবে ৪৫% = ১০,৩৯৫ টাকা এবং অন্যান্য এলাকায় কর্মস্থল হলে বিসিএস ক্যাডারদের বাড়ি ভাড়া ভাতা হবে ৪০% = ৯,২৪০ টাকা । এর সাথে যুক্ত হবে চিকিৎসা ভাতা ১,৫০০ টাকা। মন্ত্রিপরিষদ সচিব কে? মন্ত্রিপরিষদ সচিবগণের তালিকা ২০২২

বিসিএস পরীক্ষা বিজ্ঞপ্তি ২০২২ । ৪৫ তম বিসিএস সার্কুলার pdf Download করুন

বিসিএস পরীক্ষা বিজ্ঞপ্তি ২০২২ । ৪৫ তম বিসিএস সার্কুলার pdf Download করুন

বিসিএস নিয়োগ প্রক্রিয়া কি? কয়টি ধাপে বিসিএস নিয়োগ সম্পন্ন হয়?

  • বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস পরীক্ষা ব্রিটিশ আমলে ব্রিটিশ ভারতীয় সরকারের ইম্পেরিয়াল সিভিল সার্ভিসের উপর ভিত্তি করে পরিচালিত। বিসিএস পরীক্ষাকে বাংলাদেশে চাকরি প্রার্থীদের জন্য অনুষ্ঠিত সবচেয়ে বড় প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষা হিসাবে বিবেচনা করা হয়। প্রতি বছর গড়ে ৩,৫০,০০০ থেকে ৪,০০,০০০ প্রার্থী আবেদন করে, যা বছরের চাকরি প্রার্থীদের প্রায় ৯০% । পরীক্ষায় সকল ক্যাডার মিলে গড় সাফল্যের হার ০.০২% এবং সাধারণ ক্যাডারের ক্ষেত্রে যা ০.০০৫% শতাংশ, যদিও প্রতি বছর এ হার পরিবর্তিত হয়।
  • প্রথম ধাপ: প্রাথমিক পরীক্ষা – এটি বিসিএস পরীক্ষার প্রাথমিক যোগ্যতা বাছাই পর্ব। প্রতি বছর সাধারণত মে/জুন মাসে এ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। বর্তমানে ২০০নম্বরের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা নেওয়া হয়। পরীক্ষার এক মাস আগে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয় এবং পরীক্ষার প্রায় এক থেকে দেড় মাস পরে ফলাফল প্রকাশিত হয়। প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় পাশ নম্বর ৫০%।
  • দ্বিতীয় ধাপ: লিখিত পরীক্ষা – এটি বিসিএস এর প্রধান পরীক্ষা, সাধারণত প্রতি বছরের অক্টোবর/নভেম্বর/ডিসেম্বর মাসে এ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। প্রায় এক মাস আগে পরীক্ষার জন্য বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয় এবং পরীক্ষার প্রায় ২ থেকে ৩ মাস পর সাধারণত ফলাফল প্রকাশিত হয়। সর্বমোট ৯০০ নম্বরের লিখিত ও প্রফেশনাল বা টেকলিক্যাল ক্যাডারের জন্য বাড়তি ২০০ নম্বরের লিখিত পরীক্ষা দিতে হয়। লিখিত পরীক্ষায় শতকরা ৫০ ভাগ নম্বর পেলে সাধারণত একজন প্রার্থীকে ভাইভার জন্য ডাকা হয়।
  • তৃতীয় ধাপ: মৌখিক পরীক্ষা (ইন্টারভিউ) – লিখিত পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশিত হওয়ার পর মৌখিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। ২০০ নম্বরের মৌখিক পরীক্ষা ও লিখিত পরীক্ষার নম্বর বিবেচনায় প্রার্থীকে সর্বোচ্চ নম্বরধারীদের ক্রম অনুযায়ী ক্যাডার হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়। মৌখিক পরীক্ষার ১.৫ থেকে ২ মাস পর বিসিএস পরীক্ষার চূড়ান্ত ফল প্রকাশিত হয়।

কত নম্বর পেলে বিসিএস পাশ হয়?

পিএসসি প্রার্থীদের লিখিত পরীক্ষার সংগৃহীত নম্বর (লিখিত ৯০০ নম্বরের মধ্যে) এবং মৌখিক পরীক্ষার সংগৃহীত নম্বরের (২০০ নম্বরের মধ্যে) উপর ভিত্তি করে চূড়ান্ত যোগ্যতা নির্ধারণ করে। পূর্বে ৫৫% শতাংশ প্রার্থী প্রচলিত কোটা পদ্ধতি অনুসারে এবং ৪৫% শতাংশ প্রার্থী মেধা অনুসারে বাছাই করা হত। বর্তমানে শতভাগ প্রার্থী মেধা অনুসারে বাছাই করা হচ্ছে। পিএসসি যোগ্যতা সম্পন্ন প্রার্থীদের নিয়োগের জন্য জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে বিশেষ সুপারিশ করে। এরপর মন্ত্রণালয় পর্যায়ক্রমে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর কর্তৃক স্বাস্থ্য পরীক্ষা, পুলিশ ভেরিফিকেশন এবং এনএসআই ভেরিফিকেশন শেষে তাদের নাম গেজেট আকারে প্রকাশ করে। সাধারণত এ প্রক্রিয়া সম্পন্ন হতে এক থেকে দেড় বছর সময় লাগে।

Pay Scale 2015 । জাতীয় বেতন স্কেল । জাতীয় বেতন স্কেল ২০১৫ ও ২০০৯

(Visited 544 times, 1 visits today)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *