অনলাইনে জমির ম্যাপ সংগ্রহের নিয়ম ২০২২ । ডাকযোগে ঘরে আসবে জমির ম্যাপ

অনলাইনে জমির ম্যাপ সংগ্রহের নিয়ম ২০২২ । ডাকযোগে ঘরে আসবে জমির ম্যাপ

অনলাইন আবেদেনের ক্ষেত্রে মূল নকশা পাওয়া যাবে? – স্ক্যান কপির চেয়ে কি এ নকশা বেশি গ্রহণযোগ্য?– অনলাইনে জমির ম্যাপ সংগ্রহের নিয়ম ২০২২

মূল মাষ্টার নকশা বা ম্যাপ কি? যেটা জরিপের সময় মূল নকশা হিসেবে প্রস্তুত করা হয় এবং DLR অফিস বা জরিপ অধিদপ্তরে সংরক্ষণ করা থাকে। কিন্তু এই নকশাটি জমির মালিকের পাওয়ার কোনোরকম সুযোগ নেই। উল্লেখ্য মাষ্টার নকশায় ডাবল ডাবল দাগ থাকে। এই ম্যাপটি থেকে ৪ ধরনের ম্যাপ পাওয়া যায় ।

প্লেট প্রিন্ট – মূল মাষ্টার নকশা থেকে তেজগাঁও সেটেলমেন্ট অফিস যে নকশা প্রিন্ট বা মূদ্রন করে সেটাকে প্লেট প্রিন্ট বলা হয়। এটি জরিপ সমাপ্তির পর উপজেলা সেটেলমেন্ট অফিস হতে বিতরণ করা হয়। কিন্তু মনে রাখা ভালো পরবর্তীতে এই নকশা আর পাওয়া যায় না বললেই চলে। উদাহরণ স্বরূপ কোনো একটি মৌজায় ১৯৮৬ সালে আর এস জরিপ সমাপ্তি হয়। ১৯৮৬ সালে উপজেলা সেটেলমেন্ট অফিস সরকার নির্ধারিত ফি নিয়ে বেশ কিছু নকল বিতরণ করে। এই নকশা গুলো হচ্ছে প্লেট প্রিন্ট বা মূদ্রণ নকশা।

মূল নকশা প্রিন্ট কপি- বর্তমানে অফিশিয়ালি এটা পাওয়া যায় না । কিন্তু এই নকশা ও পাওয়া যায়। প্লেট প্রিন্ট বা মূদ্রণ নকশা এর পরেই এই নকশা এর অবস্থান। এই নকশাটি সবচেয়ে বড় সুবিধা ১ টি নকশা তুলে বেশ কয়েকটি ফটোকপি করেও কাজ করা যায়। বর্তমানে যেহেতু প্লেট প্রিন্ট বা মূদ্রণ কপি পাওয়া যায় না। ২ য় অপশন হিসেবে এই নকশা সংগ্রহ করা যেতে পারে। যেহেতু কালার স্কেন নকশায় বেশ কিছু সমস্যা রয়েছে।

বড় সাইজের ডিজিটাল ফটোকপি নকশা- একটি নকশাকে বড় সাইজের ভালো ডিজিটাল ফটোকপি এর খরচ ৫০-১০০ টাকা। যদি ফটোকপি ভালো মেশিনের হয় এবং মূল নকশার ফটোকপি হয় তাহলে সমস্যা নেই। এই জাতীয় নকশার কাজ করা যায়। ছোট ফটোকপি অথবা ভূল ফটোকপি-ছোট সাইজের বেশিরভাগ মেশিনে সঠিক স্কেলে কপি হয় না। আবার বড় সাইজের অনেক চায়না মেশিনের ফটোকপি ও সঠিক স্কেলে আসে না।

অনলাইন আবেদেনের ক্ষেত্রে ম্যাপের মূল কপি পাওয়া যাবে? হ্যাঁ অরিজিনাল কপি পাওয়া যাবে / ভূমি অফিসে যাওয়া ছাড়াই আপনি জমির ম্যাপ সংগ্রহ করতে পারবেন ঘরে বসেই।

জমির ম্যাপের জন্য অনলাইন আবেদনের ক্ষেত্রে ৫২০ টাকা সাধারণ ফি এবং ১১০ টাকা পোস্ট অফিস ফি মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে পরিশোধ করতে হবে।

অনলাইনে জমির ম্যাপ সংগ্রহের নিয়ম ২০২২ । ডাকযোগে ঘরে আসবে জমির ম্যাপ

Caption: MAP Certified Copy by online Application

মৌজা ম্যাপ তোলার নিয়ম । যেভাবে ম্যাপের জন্য অনলাইনে আবেদন করতে হয়

  1. প্রথমে eporcha.gov.bd/map-search-panel লিংকে ক্লিক করুন।
  2. মৌজা ম্যাপ – অনলাইন আবেদন এর নিচের ড্রপডাউন লিস্ট হতে বিভাগ, জেলা সিলেক্ট করুন।
  3. ম্যাপ টাইপ নির্বাচন করুন- সিএস বা বিএসআর বা এসএ যে কোন একটি সিলেক্ট করুন।
  4. উপজেলা/সার্কেল ও মৌজা সিলেক্ট করুন।
  5. সীট বা দাগ অনুযায়ী যে কোন একটি ধরণ সিলেক্ট করুন। (কোনো মৌজা আয়তনে অনেক বড় আকারের হলে একটি কাগজে পুরো নকশা প্রিন্ট করা অসম্ভব হয় বিধায় বড় মৌজার নকশাকে কয়েকটি ভাগে ভাগ করে প্রিন্ট করা হয়। এদের প্রত্যেকটিকে সীট বলা হয়)
  6. অনুসন্ধান করুন লেখায় ক্লিক করুন।
  7. সীট অনুযায়ী ছোট মৌজা ম্যাপ দেখতে পাবেন।
  8. সার্টিফাইড কপি পেতে আবেদন করুন লেখায় ক্লিক করুন।
  9. বাসায় ম্যাপ পেতে ডেলিভারী মাধ্যম থেকে ডাকযোগেএকটি সিলেক্ট করুন।
  10. জাতীয় পরিচয়পত্র নং, জন্ম তারিখ ও মোবাইল নম্বর লিখে যাচাই করুন।
  11. ইমেইল এড্রেস, ঠিকানা ও যোগফল প্রদান করে EKPAY সিলেক্ট করে পরবর্তী ধাপে ক্লিক করুন।
  12. Payment Gateway এর মাধ্যমে বিকাশে ৬৩০ পেমেন্ট সম্পন্ন করুন।
  13. নির্দিষ্ট সময় পরে প্রিন্ট হয়ে প্রদত্ত ঠিকানায় ম্যাপের কপি চলে আসবে।

কালার স্কেন প্রিন্ট কপি ব্যবহারে সমস্যা কি?

কালার স্কেন প্রিন্ট কপি- মূল নকশা বা মাষ্টার নকশা থেকে স্কেন করা সার্ভার থেকে প্রিন্ট করে দেয়। জেলা ডিসি অফিস ও তেজগাঁও জরিপ অফিস এই নকশা ৫২০ টাকা সরকারি ফি এর মাধ্যমে সরবরাহ করে। এই নকশা অসুবিধা হচ্ছে এই নকশা দাগ গুলো একটু মোটা হয় ফলে স্কেল দিয়ে জমি মাপতে গেলে অসুবিধা হয়। এটি কালার কাগজে প্রিন্ট হওয়াতে ফটোকপি ভালো হয় না। ঝাপসা ফটোকপি হয়। কিন্তু ভালো ফটোকপি প্রায় মূল ম্যাপের কাছাকাছি হিসেবে ব্যাবহার করা যায়। পানিতে ভিজলে নকশার দাগ গুলো মূছে যায়।

জমির ম্যাপ ব্যবহৃত চিহ্ন । অবজেক্ট ইন সিটু সাংকেতিক চিহ্নের তালিকা ২০২২

(Visited 942 times, 1 visits today)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *