ই নামজারি যাচাই ২০২৪ । জমি খারিজ বা নামজারি করা হয়েছে কিন্ত অনলাইন হয়নি?

ই নামজারি যাচাই ২০২৪ । জমি খারিজ বা নামজারি করা হয়েছে কিন্ত অনলাইন হয়নি?

অনলাইনে নামজারি বা খারিজ বা মিউটেশন সম্পন্ন করেছেন কিন্তু ই খতিয়ান পোর্টানে নামজারি খতিয়ানে সার্চ করলে দেখায় না- এক্ষেত্রে ৩ মাস থেকে ২ বছর পর্যন্ত সময় গেলে যেতে পারে– ই নামজারি যাচাই ২০২৪

মিউটেশন করেছেন কিন্তু অনলাইন ই খতিয়ান পোর্টালে পাচ্ছেন না? – এটি নিয়ে দুশ্চিন্তার কিছু নেই। যেহেতু অনলাইন মিউটেশন কপি পাওয়া যাচ্ছে সুতরাং হোল্ডিং নম্বর এন্ট্রি করে নিয়মিত ভূমিকর পরিশোধ করুন। ভূমি অফিস ক্রমান্বয়ে আপনার নামজারি খতিয়ানটি এন্ট্রি করবে তখন ই পর্চায় সার্চ করে পাবেন।

নামজারি নিয়ম কি? প্রথমে https://mutation.land.gov.bd ক্লিক করে পেইজ ওপেন করুন। অনলাইনে আবেদন করুন ট্যাবে (নামজারি আবেদনের জন্য ক্লিক করুন) এখানে ক্লিক করুন। আপনাকে নামজারি আবেদন করার ফরমে নিয়ে যাওয়া হবে। জমি খারিজ বা অনলাইনে নামজারির আবেদন করার ক্ষেত্রে কিছু বিষয় আপনার জনা জরুরী। যেমন আপনি যদি কারো প্রতিনিধি হিসাবে আবেদন করেন তাহলে আবেদন কারীর তথ্য ঘরের নিচে একটি ঘর রয়েছে। আবেদনকারী নিজে না হয়ে প্রতিনিধি হলে এখানে ক্লিক করুন ঘরে টিক মার্ক দিন। আপনার আবেদনটি জরুরী হয়ে থাকলে জরুরী কিন? টিক মার্ক দিন। নথিপত্র আপলোড করার ক্ষেত্রে, এক এক করে আপলোড করতে হবে। নথিটি আপলোড হলে এটি কি ধরণের নথি (দলিল/খতিয়ান/ নাগরিক সনদ) ড্রপডাউন মেনু থেকে সিলেক্ট করে দিতে হবে। প্রথমে যখন আপনি ই নামজারি আবেদন করবেন প্রথমেই কোর্ট ফি বাবদ ২০ টাকা এবং নোটিশ জারি ফি বাবদ ৫০ টাকা মোট ৭০ টাকা অনলাইনে পরিশোধ করতে হবে। কিছু হয়ে গেলে নিচের “দাখিল” বাটনটি ক্লিক করুন। তাহলে আপনার আবেনদটি সাবমিট হবে এবং আপনার মোবাইলে একটা মেসেজ যাবে। আবেদনটি সাবমিট হলে আপনি একটি আইডি নাম্বার পাবেন। এই আইডি নাম্বার দিয়ে আবেদনের অবস্থা সম্পর্কে জানতে পারবেন।

আবেদন অনুমোদন হলে রেকর্ড সংশোধন বা হালনাগাদ ফি বাবদ ১০০০/- ( এক হাজার টাকা) এবং প্রতি খতিয়ান সরবরাহ ফি বাবদ ১০০/- (একশত) টাকা অনলাইনে জমা দিতে হবে। ফি পরিশোধ হয়ে গেলে অনলাইন থেকে কিউআর কোডযুক্ত (কুইক রেসপন্স কোড)) অনলাইন ডিসিআর (ডুপ্লিকেট কার্বন রিসিট) সংগ্রহ করতে পারবেন। আপনার আবেদন কি অবস্থায় রয়েছে বা কতদূর অগ্রগতি তা অনলাইনে জানতে পারবেন। আবেদনটি বাতিল হয়ে গেলেও কি কি কারণে বাতিল করা হয়েছে তা আপনাকে জানানো হবে।বর্তমানে আপনার নামজারি আবেদনটি কি অবস্থায় আছে তা জানার জন্য ই নামজারি ওয়েবসাইটের হোম পেজে যান। ই নামজারি বা জমি খারিজ আবেদন ট্রাকিং ফরম আপনার বিভাগ, আবেদন আইডি ও জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) নাম্বার এবং নিচের ঘরে পাশের শর্তমত যোগফল বা বিয়োগফল লিখুন। এখন সার্চ করলে আপনার আবেদনটির সর্বশেষ অবস্থা জানা যাবে। আপনার নামজারি আবেদন অনুমোদন হলে শুনানিতে অংশগ্রহণ করতে হবে। শুনানির দিন ধার্য হলে আপনার মোবাইলে একটি মেসেজ যাবে, কত তারিখ শুনানি হবে ও সময় জানিয়ে দেবে। বর্তমানে যে কোন ভুমি মামলার শুনানিতে অনলাইনেও অংশগ্রহণ করা যায়। শুনানিতে আপনি আপনার জরুরী কাগজপত্র নিয়ে উপস্থিত থাকবেন। শুনানি শেষে আপনার নাম জারি বা মিউটেশন এর কাজ শেষ। আপনাকে মোবাইলের মেসেজের মাধ্যমে জানিয়ে দেওয়া হবে আপনাকে।

নামজারি আবেদন চেক করতে ই পর্চাতে যেতে হবে। নামজারি খতিয়ান অনলাইন কপি ডাউনলোড করা গেলে চিন্তার কিছু নেই

ক) সাধারণ ক্ষেত্রে ২৮ (আটাশ) কার্য দিবস । খ) সনদ প্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধাগণের জন্য ১০(দশ) কার্য দিবস । গ) প্রবাসীদের জন্য ( মহানগর এলাকায়) ১২ (বার) কার্য দিবস । ঘ) প্রবাসীদের জন্য ( অন্যান্য এলাকায়) ০৯ (নয়) কার্য দিবস । ঙ) গুরুত্বপূর্ণ/রপ্তানীমুখী/বৈদেশিক বিনিয়োগপুষ্ট শিল্প প্রতিষ্ঠানের জন্য ০৭ (সাত) কার্য দিবস । জমির মালিকানার ধরণ ভেদে সর্বনিম্ন ৭ দিন হতে ২৮ কর্মদিবস প্রয়োজন পড়ে।


ই নামজারি যাচাই ২০২৪ । জমি খারিজ বা নামজারি করা হয়েছে কিন্ত অনলাইন হয়নি?

Caption: eporcha.gov.bd

ই নামজারি যাচাই করার নিয়ম ২০২৪ । মিউটেশন ওয়েবসাইট হতে নামজারি আবেদন নম্বর বা ট্র্যাকিং নম্বর ব্যবহার করে ডাউনলোড করতে পারবেন

  1. অনলাইনে mutation.land.gov.bd ওয়েবসাইটে যান।
  2. ‘আবেদনের সর্বশেষ অবস্থা’ অপশনে ক্লিক করুন।
  3. নিম্নলিখিত তথ্যগুলো প্রদান করুন বিভাগ: আপনার জমি যে বিভাগে অবস্থিত। জেলা: আপনার জমি যে জেলায় অবস্থিত। উপজেলা: আপনার জমি যে উপজেলায় অবস্থিত। মৌজা: আপনার জমির মৌজা। দাগ নম্বর: আপনার জমির দাগ নম্বর। আবেদন আইডি: আপনার নামজারি আবেদনের আইডি (যদি থাকে)। জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর: আপনার জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর। গাণিতিক সমাধান: প্রদর্শিত গাণিতিক সমাধান লিখুন।
  4. ‘খুঁজুন’ বাটনে ক্লিক করুন।
  5. আপনার নামজারির বর্তমান অবস্থা প্রদর্শিত হবে।

খারিজ করতে কি কি কাগজপত্র লাগে?

নামজারির জন্য যে যে কাগজপত্র প্রয়োজন হয় তার মধ্যে ২০(বিশ )টাকার কোর্ট ফি সহ মূল আবেদন ফর্ম (বর্তমানে অনলাইনে আবেদন করতে হয়)। আবেদনকারীর ১(এক )কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি (একাধিক ব্যক্তির ক্ষেত্রে প্রত্যেকের জন্য ছবি প্রযোজ্য )। আবেদনকারীর পরিচয়পত্রের সত্যায়িত অনুলিপি (জাতীয় পরিচয়পত্র /ভোটার আইডি /জন্ম নিবন্ধন সনদ /পাসপোর্ট/ড্রাইভিং লাইসেন্স /অন্যান্য )। পর্চা বা খতিয়ানের ফটোকপি /সার্টিফাইড কপি। বকেয়া ভূমি উন্নয়ন কর পরিশোধের রশিদ। সর্বশেষ জরিপের পর থেকে বায়া দলিলের সার্টিফাইড কপি বা ফটোকপি। উত্তরাধিকারসূত্রে মালিকানা লাভ করলে অনাধিক তিন মাসের মধ্যে ইস্যুকৃত মূল উত্তরাধিকার সনদ। ডিক্রির মাধমে জমির মালিকানা লাভ করলে উক্ত ডিক্রির সার্টিফাইড কপি বা ফটোকপি।

এসএমএসের মাধ্যমে কি নামজারি যাচাই করা যায়? হ্যাঁ। ‘LAND <আবেদন আইডি> <জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর>’ টাইপ করে 16121 নম্বরে এসএমএস পাঠান। আপনার নামজারির বর্তমান অবস্থা এসএমএসের মাধ্যমে পাঠানো হবে।আপনার স্থানীয় ভূমি অফিসে যোগাযোগ করে আপনার নামজারির অবস্থা সম্পর্কে জানতে পারেন। bhumi.gov.bd ওয়েবসাইটে ‘খতিয়ান অনুসন্ধান’ অপশন ব্যবহার করে আপনার খতিয়ানের বর্তমান অবস্থা জানতে পারেন। নামজারি আবেদন করার পর, প্রক্রিয়া সম্পন্ন হতে কিছু সময় লাগতে পারে। নিয়মিত আপডেটের জন্য আপনার নামজারির অবস্থা পরীক্ষা করুন। আপনার যদি কোন প্রশ্ন থাকে, তাহলে আপনার স্থানীয় ভূমি অফিসে যোগাযোগ করুন।

জমি খারিজ বা নামজারি করার নিয়ম ২০২৪ । জমি খারিজ করতে কি কি কাগজপত্র লাগে?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *