সোনালী ব্যাংক ই ওয়ালেট ব্যবহার,

ই ওয়ালেট সম্পর্কিত কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য।

সোনালী ব্যাংক একটি ম্যানুয়াল ও সনাতন পদ্ধতিতে লেনদেনের ব্যাংক। গ্রাহকগণ ই-ওয়ালেট পেয়ে খুবই খুশি এবং গুগল প্লে স্টোর থেকে অ্যাপটি ডাউনলোডের মাধ্যমে ব্যাপকভাবে ব্যবহার করছেন। ই-ওয়ালেট ব্যবহারের আগে নিচের বিষয়গুলো একবার দেখে নিন।

১। যে মোবাইলে একবার রেজিষ্ট্রেশন করবেন সেই মোবাইল ছাড়া অন্য মোবাইলে ব্যাবহার করতে পারবেন না।অর্থাৎ ই ওয়ালেট শুধু একটা মোবাইলেই ব্যাবহার করা যায় যা করা হয়েছে সিকিউরিটি পার্পাসে। অন্য মোবাইলে লগিন করার চেষ্টা করলে ইরর মেসেজ পাবেন।” This wallet is not binded” অন্য মোবাইলে ব্যাবহার করতে চাইলে শাখায় গিয়ে নতুন মোবাইলটি আপডেট করে নিতে হবে।

২। একই মোবাইল নাম্বার দুই একাউন্টে থাকলে শুধু একটা একাউন্ট ই-ওয়ালেট এ ব্যাবহার করতে পারবেন।নতুন একাউন্ট এড করার ফিচার সামনে আসবে। তবে মোবাইল নাম্বার আলাদা হলে রেজিষ্ট্রেশন করা যাবে।

৩। স্কিটো সিমে ভুলেও রিচার্জ করবেন না।এখনো এই সিমে রিচার্জ হয় না।। টাকা কেটে নিবে। রিচার্জ হবে না।ব্যাক পেতে সময় লাগে। বিভিন্ন মোবাইল অপারেটর এর দেয়া অফার রিচার্জ যেমন ৩৯/৬৯/৭৯/৩০৯ এই টাইপ রিচার্জ এখন করা যাচ্ছে যা আগে করা যেতনা।সমস্যাটির সমাধান হয়েছে।

৪।পিন ভুল দেয়ার ফলে লক হলে শাখায় যোগাযোগ করে আবার একটিভ করে নিতে হবে।আর পিন নাম্বার ভুলে গেলে নতুন ভাবে রিসেট করতেও শাখায় যোগাযোগ করতে হবে।

৫। BEFTN করলে অনেকসময় ২/৩ কার্যদিবস লেগে যায়। কয়েক মাধ্যম ঘুরে এরপর একাউন্টে জমা হয় যেখানে বাংলাদেশ ব্যাংক জড়িত।সব ঠিক থাকলে অবশ্যই যাবে, না গেলে আবার একাউন্টে ব্যাক আসবে।

৬। একাউন্ট থেকে বিকাশ/ রকেট এ টাকা নিতে হলে beftn এ গিয়ে ব্যাংকের নাম> জেলা ঢাকা সাউথ >শাখা- বিকাশ হলে MFS Brac bank, রকেট হলে MFS DBBL দিয়ে অন্যান্য তথ্য দিয়ে সাবমিট করতে হবে। তাছাড়াও একাউন্ট টু বিকাশ এবং বিকাশ টু একাউন্ট টাকা ট্রান্সফার করতে বিকাশ এপ থেকে Add money ও Transfer money ইউজ করতে হবে।

৭। রেজিষ্ট্রেশন করার সময় Account not found দেখালে বুঝতে হবে আপনার একাউন্ট এ মোবাইল/আইডি নাম্বার কোথাও মিসিং আছে। এ জন্য nid সহ শাখায় যোগাযোগ করলে সমাধান পাওয়া যাবে।

৮। সোনালী ব্যাংকের স্কিম এ এখনো সরাসরি ই ওয়ালেট এর মাধ্যমে টাকা জমা দেয়া যায় না।সামনের আপডেট এ এই সুবিধা পাওয়া যাবে। অন্য ব্যাংকের ক্ষেত্রে beftn করে দেখতে পারেন। প্রয়োজনে কথা বলে সিউর হয়ে নিতে পারেন।

৯। অন্য ব্যাংকের ক্রেডিট কার্ডের টাকা beftn এর মাধ্যমে দিতে পারবেন। একাউন্ট নাম্বারের জায়গায় কার্ড নাম্বার দিতে হবে।সেই ব্যাংকের শাখায় ফোন দিয়ে জেনে নিবেন তারা তাদের ক্রেডিট কার্ডের টাকা কোন শাখায় জমা নেয়। beftn এ শাখার ঘরে সেই শাখা সিলেক্ট করতে হবে।

১০। BEFTN এ কোন চার্জ নেই। সোনালী ই ওয়ালেট এ সেন্ড মানিও কোন চার্জ নেই। সম্পুর্ন ফ্রি।

১১। ই-ওয়ালেট দিয়ে মোবাইল রিচার্জ ফেইল হয়ে টাকা কেটে নিলে support.ewallet@sonalibank.com.bd এ মেইল করলে দ্রুত সমাধান পাওয়া যাবে।

১২। ই ওয়ালেট রিকুয়েষ্ট দেয়ার আগে জেনে নিন আপনার একাউন্টে NID আগের টা দেয়া নাকি নতুন টা দেয়া। আপনার একাউন্টে আগের আইডি আর আপনি রিকুয়েষ্ট দিলেন স্মার্ট আইডি দিয়ে তাহলে রিকুয়েষ্ট এপ্রুভ হতে অনেক সময় লাগবে।সত্যি বলতে মিসম্যাচ হলে এপ্রুভ করা যায় না, কর্মকর্তা চাইলেও পারে না।।
এমন হলে দ্রুত NID ফটোকপি নিয়ে শাখায় যোগাযোগ করুন।

সোনালী ই ওয়ালেট ইন্সটল থেকে শুরু করে কিভাবে ব্যাবহার করবেন সকল ধাপ একসাথে দেখতে নিচের ভিডিও টি দেখতে পারেন

পোস্ট ক্রেডিট:  সাব্বির আহমেদ, সোনালী ব্যাংক লিমিটেড

(Visited 1,230 times, 1 visits today)

2 comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *