পুরাতন জন্ম নিবন্ধন নতুন করার নিয়ম ২০২২

হাতে লেখা জন্ম নিবন্ধন ডিজিটাল করার নিয়ম ২০২২

হাতে লেখা জন্ম নিবন্ধন ডিজিটাল করার নিয়ম – ডিজিটাল জন্ম নিবন্ধন কি – কিভাবে জন্ম নিবন্ধন ডিজিটাল করবেন।

ডিজিটাল জন্ম নিবন্ধন – যে জন্ম নিবন্ধনটি অনলাইনে চেক করা যায় এবং কম্পিউটার প্রিন্টেড সেটিই হচ্ছে ডিজিটাল জন্ম নিবন্ধন – আপনার জন্ম নিবন্ধনটি যদি হাতে লেখা হয়ে থাকে আজই আপনার নিজ স্থায়ী ঠিকানায় গিয়ে জন্ম নিবন্ধনটি ডিজিটাল করে নিন। বর্তমানে জন্ম নিবন্ধন বিভিন্ন কাজে প্রয়োজন পড়ছে।

ম্যানুয়াল জন্ম নিবন্ধন,যেগুলি এখনও অনলাইনে করা হয়নি-এগুলির বিষয়ে করণীয় কী? ম্যানুয়াল জন্ম নিবন্ধনসমূহ অনলাইনে অন্তর্ভুক্তির জন্য অনেকবার সময় দেওয়া হয়েছে। অনলাইন বহির্ভূত এই সকল জন্ম নিবন্ধন এখন হুবহু একই জন্ম নিবন্ধন নম্বর দিয়ে অনলাইনে অন্তর্ভুক্তির সুযোগ নাই।

যে এলাকায় হাতে লিখা জন্ম নিবন্ধনটি করা ছিল, সেই কার্যালয়ে রক্ষিত বইতে সনদের তথ্যটি পাওয়া গেলে নিবন্ধক সরাসরি হাতে লিখা সনদের তথ্য দিয়েই অনলাইন নিবন্ধন করে দিবেনযদি না ইতঃপূর্বে অন্য কোথাও জন্ম নিবন্ধন করা হয়ে থাকে।। তবে জন্ম নিবন্ধন নম্বরটি পরিবর্তিত হবে। এতে অবশ্য সংশ্লিষ্ট নাগরিকের কোন ক্ষতি বা অসুবিধা হবে না।

পুরাতন জন্ম নিবন্ধন ডিজিটাল করে নতুন জন্ম নিবন্ধন / যেভাবে বুঝবেন আপনার জন্ম নিবন্ধনটি ডিজিটাল

ব্যক্তিগত পরিচিতি নং এবং জন্ম তারিখ দিয়ে যদি আপনি everify.bdris.gov.bd তথ্য যাচাই করতে পারেন এবং নাম ঠিকানা চলে আসে তবে বুঝবেন আপনার জন্ম নিবন্ধন হাতে লেখা হলেও সেটি ডিজিটাল করা আছে।

হাতে লেখা জন্ম নিবন্ধন ২০২২

Caption: ২০১০ সালেও হাতে লেখা জন্ম নিবন্ধন প্রদান করা হতো যদি অনলাইনে এন্ট্রি করা হয়েছে সেগুলো সবই পরবর্তী সময়ে তবু আপনি চাইলে এটি দিয়ে অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন সনদ পুনঃ মুদ্রন অপশনের ক্লিক করে আবেদন করতে পারেন। প্রিন্টেড কপি স্বাক্ষর করে জমা দিলেই ইংরেজী এবং বাংলা ভাষায় পাবেন জন্ম নিবন্ধন অনলাইন কপি।

যেভাবে জন্ম নিবন্ধন সনদ পুন: মুদ্রনের জন্য অনলাইনে আবেদন করবেন

  1. প্রথমে আপনি bdris লিখে গুগল করুন।
  2. উপরের জন্ম নিবন্ধন মেন্যুতে ক্লিক করে নিবন্ধন সনদ পুনঃ মুদ্রন সাব মেন্যুতে ক্লিক করুন।
  3. আপনার হাতে লেখা জন্ম নিবন্ধন নং এবং জন্ম তারিখ দিয়ে অনুসন্ধান করুন।
  4. আইডি, জন্ম তারিখ, নিবন্ধিত ব্যক্তির নাম, পিতার নাম, মাতার নাম, একশন ইত্যাদি দেখাবে।
  5. নির্বাচন করুন এ ক্লিক করে কনফার্ম করুন।
  6. নিবন্ধক কার্যালয়ের নাম, আবেদনকারীর তথ্য, ফোন নম্বর ইত্যাদি তথ্য দিয়ে সাবমিট বাটনে ক্লিক করুন।
  7. ব্যাস কাজ শেষ আবেদন পত্রের নম্বর দেখাবে সেটি সংরক্ষণ করুন এবং আবেদনপত্র প্রিন্ট এ ক্লিক করে এটি প্রিন্ট করে নিন।
  8. আবেদনপত্রে স্বাক্ষর করে ইউনিয়ন পরিষদ বা পৌর সভায় জমা দিন।
  9. কর্তৃপক্ষ ফি নিয়ে আবেদনটি জমা রেখে দিবে। ২-৫ দিনের মধ্যে বাংলা এবং ইংরেজী ভার্সনে আপনি আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদ পেয়ে যাবেন।

অনলাইনে আবেদন না করে ডিজিটাল করা যাবে না?

অবশ্যই যাবে। আপনি আপনার ইউনিয়ন পরিষদে বা পৌর সভায় গিয়ে জন্ম নিবন্ধন শাখায় পুরাতন হাতে লেখা জন্ম নিবন্ধন সহ যোগাযোগ করুন। তারা এটি ফি রেখে দিবে এবং আপনার পুরাতন জন্ম নিবন্ধনের একটি ফটোকপি রেখে দিবে। ২-৩ দিনের ভিতরে আপনি ইংরেজী এবং বাংলা ভাষায় কম্পিউটার প্রিন্ট কপি চেয়্যারম্যান বা কাউন্সিলরের স্বাক্ষর সহ পেয়ে যাবে এবং এটি অনলাইনে জন্ম নিবন্ধকের কার্যালয়ে এন্ট্রি হয়ে যাবে। আপনাকে যে কম্পিউটার প্রিন্ট কপি সরবরাহ করা হবে সেটি অনলাইনে যাচাই করতে পারবেন।

ভিডিও আসছে…………………….

(Visited 23,382 times, 3 visits today)

13 comments

    1. পুরাতন কপি নিয়ে ইউনিয়ন পরিষদে যোগাযোগ করুন অথবা অনলাইনে আবেদন করুন।

      1. পুরাতন কপি নিয়ে পরিষদে যোগাযোগ করুন অথবা অনলাইনে দেখানো নিয়মে আবেদগন করুন।

  1. হাতে লেখা জন্ম নিবন্ধন ডিজিটাল করতে চাই,কিন্তু অনলাইনে আমার জন্ম নিবন্ধন এর কোন রেকর্ড নেই। করণীয় কি?

    1. এক্ষেত্রে হাতে লেখাটি নিয়ে ইউপিতে গেলে তাদের রেকর্ড অনুসারে নতুন ডিজিটাল নম্বর দিয়ে জন্ম সনদ করে দিবে। আবার আপনি চাইলে অনলাইনে নতুন করে আবেদন করে জন্ম সনদ করিয়ে নিতে পারেন। নতুন জন্ম নিবন্ধন আবেদন পদ্ধতি (ভিডিও সহ)

  2. আমার জন্ম নিবন্ধন অনলাইনে আছে কিন্তু হাতের লেখা এটাকে নতুন ভাবে কিভাবে করব

    1. অনলাইনে পুন:মুদ্রনের আবেদন করুন অথবা অনলাইনে জন্মনিবন্ধন ভেরিভাই লিংকে গিয়ে অনলাইন কপি বা বিবরণী ডাউনলোড করে নিন।

  3. আমার জন্ম নিবন্ধন ডিজিটাল করতে চাই ।কিন্তু আমার মা বাবার কোনো জ্ন্ম নিবন্ধ নেই ।আর আমার পাসর্পোট ছাড়া কোনো এভিডেন্স নেই

    1. মা বাবার জন্ম নিবন্ধন এখন লাগে না। পাসপোর্ট দিয়েই করতে পারবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *